kalerkantho


অস্ট্রেলিয়ায় ক্যাথলিক চার্চে যৌন নিপীড়নের শিকার চার হাজারের বেশি শিশু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৯:৪৫



অস্ট্রেলিয়ায় ক্যাথলিক চার্চে যৌন নিপীড়নের শিকার চার হাজারের বেশি শিশু

অস্ট্রেলিয়ায় ৩৫ বছরে ৪৪০০ শিশু ক্যাথলিক গির্জার যাজকদের হাতে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ করেছে। শিশু যৌন নিপীড়নবিরোধী রয়েল কমিশনকে নির্যাতনের শিকার ব্যক্তিরা জানিয়েছে, ১৯৮০ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত সময়ে এই যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটে।

তদন্তে বলা হয়, ১৯৫০ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত সময়ে যাজকদের ৭ শতাংশ শিশু যৌন নিপীড়নের সঙ্গে জড়িত। অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ পর্যায়ের এই তদন্ত কমিশনে অন্যান্য অধর্মীয় প্রতিষ্ঠানেরও যৌন নিপীড়নের বিষয়ে তদন্ত করছে।

তদন্ত কমিশন যাজকদের হাতে শিশু যৌন নিপীড়নের শিকার ব্যক্তিদের ভয়াবহ বর্ণনা শুনেছে। এক ছেলে শিশু জানিয়েছে, এক ক্যাথলিক খ্রিষ্টান ব্রাদার শিক্ষক তার ক্লাসরুমে অন্য ছাত্রদের সামনেই তাকে নির্যাতন করে। আরেকটি বর্ণনায় এক মেয়ে শিশু অভিযোগ করে, এক যাজক ছুরি দিয়ে ভয় দেখিয়ে তাকে নির্যাতন করে।

সোমবার এই ভয়াবহ বর্ণনার পরিসংখ্যান প্রকাশ করে কমিশন। এই বিষয়ে কমিশনকে সহায়তাকারী প্রধান আইনজীবী গেইল ফারনেস বলেন, অস্ট্রেলিয়াজুড়ে ১ হাজার ক্যাথলিক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। ১৯৮০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ১৮৮০ জন যাজক অভিযুক্ত হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার মেয়েদের গড় বয়স ১০.৫ আর ছেলেদের ১১.৫।

গড়ে প্রতিটি নিপীড়নের অভিযোগ প্রকাশিত হতে ৩৩.৫ বছর লেগেছে।

ফারনেস বলেন নির্যাতনের পরবর্তী ঘটনাগুলো হতাশাজনক ভাবে সবগুলোই একই ধরণের। হয় শিশুর অভিযোগকে পাত্তাই দেওয়া হয়নি অথবা উল্টো তাকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। অভিযোগের তদন্ত হয়নি, যাজক ও ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের সরিয়ে নেওয়া হয়। যে জায়গায় তাদের বদলী করে পাঠানো হয় সেখানের মানুষ তার অতীত সম্পর্কে কিছুই জানত না।

যাজকদের নির্যাতনের শিকার দুই মেয়ে শিশুর বাবা মা অ্যান্থনি ও ক্রিসি ফস্টার বলেন, ক্যাথলিক চার্চ কোনো দয়া বা অনুতাপ কিছুই দেখায়নি। দীর্ঘদিন ধরে তারা এভাবে নির্যাতনকারীদের লুকোতে কাজ করে এসেছে।
সূত্র : বিবিসি


মন্তব্য