kalerkantho


রাষ্ট্রীয় পদে না থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় ইভানকা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৮:৩২



রাষ্ট্রীয় পদে না থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় ইভানকা

হোয়াইট হাউসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নতুন প্রশাসনে এখনও ডাক পাননি ট্রাম্পকন্যা ইভানকা ট্রাম্প। স্বামী জ্যারেড কুশনার অবশ্য এরই মধ্যে প্রেসিডেন্টের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। তবে অফিসিয়ালি হোয়াইট হাউসের কোনো দায়িত্ব না পেলেও এরই মধ্যে নিজেকে একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে প্রমাণে সক্ষম হয়েছেন ইভানকা। গত সপ্তাহেই গুরুত্বপূর্ণ একটি বৈঠকে অংশ নেন ফার্স্ট ডটার ইভানকা। নীতি-নির্ধারণী বিষয়ে বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীদের সঙ্গে ট্রাম্পের বৈঠকে অংশ নেন তিনি।

সম্প্রতি ইয়েমেনে এক অভিযানে নিহত এক মার্কিন নৌসেনার মৃতদেহ দেশে আনা হয়। তার প্রতি সম্মান জানাতে ডেলাওয়্যার অঙ্গরাজ্যের ডোভার বিমানঘাঁটিতে উপস্থিত হন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন কন্যা ইভানকা ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউস থেকে ডেলাওয়্যার পর্যন্ত সফরে বাবাকে সময় দেন তিনি। সরকারের নীতি-নির্ধারণী নানা বিষয়ে কথা বলতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের নিজ বাসায় আমন্ত্রণ জানান ইভানকা। এভাবে পর্দার আড়ালে থেকেই হোয়াইট হাউসে নিজের প্রভাবের জানান দেন ট্রাম্পকন্যা।

সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আয়োজনে ইভানকার উপস্থিতি এরই মধ্যে নজর কেড়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্প অর্গানাইজেশন এবং নিজের লাইফস্টাইল ব্র্যান্ডের দায়িত্ব ছাড়ার পর ওয়াশিংটনের নিয়মিত বাসিন্দা হবেন ৩৫ বছরের ট্রাম্পকন্যা। এ সময় সরকারে তার কাজের পরিধিও বাড়বে।

গত জানুয়ারিতে এবিসি টেলিভিশনের '২০/২০' অনুষ্ঠানে ইভানকা বলেন, ''আমার বাবা প্রেসিডেন্ট হবেন। আশা করি, সেখানে আমি তার পাশে থাকব। যে বিষয়গুলোতে আমার পুরো পেশাগত জীবনে কাজ করেছি; সে বিষয়গুলোতে আমি তার পাশে থাকব। ''

এদিকে ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের চিফ লিগ্যাল অফিসার অ্যালান গারটেন শুক্রবার জানিয়েছেন, অর্গানাইজেশন থেকে ইভানকা ট্রাম্পকে আলাদা করতে প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে উপস্থাপন করা হয়েছে। তবে এটা একটা দীর্ঘ প্রক্রিয়া এবং এতে কয়েক সপ্তাহ লেগে যাবে।

উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের জয়ের পর; দায়িত্ব গ্রহণের আগেই বেশ কয়েকজন বিদেশি ব্যবসায়িক অংশীদারের সঙ্গে বৈঠক করেন ট্রাম্প। ইভানকা ট্রাম্পও এসব বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। এমনকি রাজনৈতিক কয়েকটি বৈঠকেও ট্রাম্পের সঙ্গে অংশ নেন ইভানকা। জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বৈঠকে তিনি অংশ নিয়েছেন। একইভাবে আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট মরিসিও মাকরির সঙ্গে ট্রাম্পের ফোনালাপে ইভানকা ট্রাম্পও কথা বলেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের আইনে প্রশাসনিক দায়িত্বের বাইরে সরকারি কর্মকর্তাদের সব রকম স্বার্থসংশ্লিষ্টতা নিষিদ্ধ। কিন্তু প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট এ আইনের এখতিয়ারের বাইরে। ইভানকা ট্রাম্প যেহেতু এ দুই পদের কোনোটিতে যাচ্ছে না ফলে রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব গ্রহণের আগে তাকে ব্যবসায়িক স্বার্থসংশ্লিষ্টতা দায়িত্ব ছাড়তে হচ্ছে। এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর হয়ত হোয়াইট হাউসে ডাক পেতে পারেন তিন সন্তানের মা এবং ফ্যাশন-সামগ্রী ও জুয়েলারি ব্যবসায়ী ইভানকা ট্রাম্প।
সূত্র : এবিসি নিউজ


মন্তব্য