kalerkantho


নির্বাহী আদেশের খসড়া ফাঁস

বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক এবং সমকামী বিয়েকে অবৈধ ঘোষণার পরিকল্পনা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:৩৩



বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক এবং সমকামী বিয়েকে অবৈধ ঘোষণার পরিকল্পনা!

বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক এবং সমকামী বিয়েকে অবৈধ ঘোষণা করে নির্বাহী আদেশ দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাঁস হওয়া এক নথির বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইনডিপেনডেন্ট খবরটি জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য নেশন এ সর্বপ্রথম ওই সম্ভাব্য নির্বাহী আদেশের খসড়াটি ফাঁস হয়। অবশ্য, আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ট্রাম্প যদি এ আদেশ দেন তবে তা যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের প্রথম সংশোধনীর (এস্টাবলিমমেন্ট ক্লজ) লঙ্ঘন হবে।

ফাঁস হওয়া নথিকে উদ্ধৃত করে ইনডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রচলিত কিছু ধর্মীয় বিশ্বাসের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে নির্বাহী আদেশ জারির পরিকল্পনা করছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এর আওতায় বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্ক এবং সমকামী বিয়ের বিরুদ্ধে যে ধারণা প্রচলিত রয়েছে সেগুলো বাস্তবায়িত করিবেন তিনি। 'ধর্মীয় স্বাধীনতার প্রতি সম্মান প্রদর্শন' হিসেবে দাবি করা ওই নির্বাহী আদেশের খসড়ায় প্রচলিত রক্ষণশীল খ্রিষ্টান ও ক্যাথলিক ধর্মীয় বিশ্বাসকে প্রতিফলিত করা হচ্ছে। যদি আদেশটিতে স্বাক্ষর করা হয়, এ ধরনের কর্মকাণ্ডে লিপ্তদের বিরুদ্ধে সরকার শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেবে। বৈষম্য থেকে বাঁচতে যে এলজিবিটি বা তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরা লড়াই করে আসছেন তারাও এ আদেশের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

তা ছাড়া যেসব প্রতিষ্ঠান সমকামী বিয়ে ও বিবাহবহির্ভূত যৌন সম্পর্কের বিরুদ্ধে কাজ করে তাদেরকে করমুক্ত সুবিধা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে ওই আদেশে। এ ছাড়া অ্যাফোর্ডেবল কেয়ার অ্যাক্টের আওতায় কর্মীদেরকে কম্পানির পক্ষ থেকে জন্মনিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত যে স্বাস্থ্যবীমা সুবিধা দেওয়া হয় তার বিরোধিতাকারীদের নিষ্কৃতি দেওয়ার জন্য ওই নির্বাহী আদেশে বলা আছে।

অবশ্য এ ব্যাপারে ইনডিপেনডেন্টের পক্ষ থেকে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র শন স্পাইসারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি নিশ্চিত করে কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তার দাবি, এ ধরনের আদেশ জারি হতেও পারে নাও হতে পারে। তিনি বলেন, 'এখন এ নিয়ে আমাদের কিছুই বলার নেই'।

আইন বিশেষজ্ঞরা দ্য নেশনকে বলেন, বলছেন, যদি এ আদেশ দেন তবে তা যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের প্রথম সংশোধনীর (এস্টাবলিমমেন্ট ক্লজ) লঙ্ঘন হবে।


মন্তব্য