kalerkantho

সোমবার । ১৬ জানুয়ারি ২০১৭ । ৩ মাঘ ১৪২৩। ১৭ রবিউস সানি ১৪৩৮।


শিগগির তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ, জানাল সমীক্ষা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ জানুয়ারি, ২০১৭ ১৯:৪৬



শিগগির তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ, জানাল সমীক্ষা

শিগগির বেজে উঠতে পারে যুদ্ধের দামামা এবং সেই যুদ্ধ আকার নিতে পারে বিশ্বযুদ্ধের। আমাদের গ্রহ প্রবল সংকটে। এমনটাই ভাবছেন পশ্চিম গোলার্ধের বাসিন্দারা। এই তথ্য উঠে এল সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায়।

প্রকৃত পক্ষে এই মুহূর্তে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তেই জারি রয়েছে যুদ্ধ পরিস্থিতি। সিরিয়ার রক্তাক্ত সংগ্রাম, মধ্যপ্রাচ্চে আইএস জেহাদের সঙ্গে যুক্ত হতে চলেছে ভ্লাদিমির পুতিন এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের পারস্পরিক চাপান-উতোর। এমন পরিবেশে পশ্চিমের মানুষ যুদ্ধের কথাই ভাবছেন। এ কথা জানিয়েছে ইউগভ নামের এক ক্ষেত্র সমীক্ষা সংস্থা।  

সম্প্রতি ৯টি দেশের ৯০০০ মানুষের ওপরে একটি সমীক্ষা চালিয়েছিল এই সংস্থাটি। বিষয় ছিল-বিশ্ব শান্তির বিষয়ে তাঁরা কী ভাবছেন? মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকরা জানিয়েছেন, তাঁরা ইতিমধ্যেই অস্ফুট রণদামামা শুনতে পাচ্ছেন। ফ্রান্স, জার্মানি এবং যুক্তরাজ্যের মানুষও শান্তির ব্যাপারে আশাবাদী নন।

সমীক্ষা থেকে জানা যাচ্ছে, মার্কিন নাগরিকদের ৬৪ শতাংশ মনে করছেন, বিশ্ব এই মুহূর্তে এক বৃহৎ যুদ্ধের সামনে। মাত্র ১৫ শতাংশ মানুষ মনে করছেন, শান্তি বিঘ্নিত হচ্ছে না। ব্রিটেনে ১৯ শতাংশ মানুষ মনে করছেন, শান্তি বজায় রয়েছে। কিন্তু প্রায় ৬১ শতাংশ মানুষ বারুদের গন্ধ পাচ্ছেন।  

তুলনায় উত্তর ও উত্তর-পূর্ব ইউরোপীয় দেশগুলি, বিশেষ করে সুইডেন, ফিনল্যান্ড এবং নরওয়ের মতো দেশের বাসিন্দারা যুদ্ধ নিয়ে তেমন চিন্তিত নন। এদিকে ডেনমার্কের ৩৯ শতাংশ মানুষ শান্তি বিঘ্ন হচ্ছে না বলেই জানিয়েছেন।  
ইউগভ এর ডিরেক্টর অ্যান্টনি ওয়েলস জানিয়েছেন, যুদ্ধের ভয় সব থেকে বেশি রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ফ্রান্সে। কিন্তু তার কারণ অন্য। মার্কিন নাগরিকরা মনে করেন, ট্রাম্প-শাসন বিপর্যয় ডেকে আনবেই। আর ফরাসিদের ধারণা, সন্ত্রাস থেকেই জন্ম নিতে পারে বড় ফাটল। রাশিয়াকে ফরাসিরা ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের কাছে মূর্তিমান উপদ্রব বলেই মনে করেন। তবে সেখানে সন্ত্রাস-ভীতিই প্রধান।

বিশ্ব শান্তির সম্ভাব্য বিঘ্নকর্তা হিসেবে অধিকাংশ ইউরোপিয়ান রাশিয়াকেই চিহ্নিত করছেন। ব্রিটেনের ৭১ শতাংশ এবং আমেরিকার ৫৯ শতাংশ মানুষ কোল্ড ওয়ার জমানার মতো রুশ-ভীতিতে ভুগছেন।

সমীক্ষার সারমর্ম হচ্ছে, ট্রাম্প শাসন আর পুতিনের ক্রমোত্থান আবার ঠাণ্ডা লড়াইয়ের পরিবেশকে ফিরিয়ে আনছে। বড় যুদ্ধ হোক বা না হোক, ছায়া যুদ্ধের ভয় আচ্ছন্ন করে রেখেছে পশ্চিমী দুনিয়াকে।
সূত্র: এবেলা


মন্তব্য