kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


লিবিয়ায় বাংলাদেশিসহ আইএসের ৫ জিম্মি উদ্ধার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ১৩:২৭



লিবিয়ায় বাংলাদেশিসহ আইএসের ৫ জিম্মি উদ্ধার

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন আইএস এর জিম্মিদশা থেকে এক বাংলাদেশিসহ পাঁচজনকে উদ্ধার করার দাবি করেছে লিবিয়ার সরকারপন্থী বাহিনী। তুমুল লড়াইয়ের পর লিবিয়ার সিরতে শহর থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় এক কর্মকর্তার দাবিকে উদ্ধৃত করে বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স খবরটি নিশ্চিত করেছে।

এক বছরেরও বেশি সময় আগে সিরতে শহরের দখল নেয় আইএস। ২০১১ সালে যারা গাদ্দাফিকে ক্ষমতাচ্যুত করতে একসঙ্গে লড়াই করেছিল তাদের মধ্যে বিরোধিতা শুরু হওয়ার সুযোগ নিয়ে শহরটি দখলে নিতে সক্ষম হয় জঙ্গি সংগঠনটি। আর শহরটি থেকে আইএসকে উচ্ছেদের জন্য গত ছয় মাস ধরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে সরকারি বাহিনী। ত্রিপোলিতে জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের সঙ্গে জোটবদ্ধভাবে মিসরাতা শহরের কয়েকটি গোষ্ঠী সিরতেতে অভিযান চালাচ্ছে।

এর মধ্যে বনিয়ান মারসুস বাহিনী নামে সরকারপন্থী একটি গোষ্ঠীও রয়েছে।
বনিয়ান মারসুস বাহিনীর মুখপাত্র রিদা ইসা জানান, মুক্ত করা বিদেশিদের মধ্যে দুজন তুরস্কের, দুজন ভারতের এবং একজন বাংলাদেশের নাগরিক। কিভাবে এবং কোথা থেকে ওই পাঁচজনকে জিম্মি করা হয়েছিল তা জানানো হয়নি। তাদের নাম-পরিচয়ও জানা যায়নি। অবশ্য, গত দুই বছর ধরে আইএস বিভিন্ন তেলক্ষেত্রে হামলা চালিয়েছে এবং বেশ কয়েকজন বিদেশি নাগরিককে অপহরণ করেছে। ২০১৫ সালের মে মাসে একজন বাংলাদেশি, একজন চেক এবং একজন অস্ট্রিয়ানসহ বেশ কয়েকজন বিদেশিকে সিরতের তেল ক্ষেত্র থেকে জিম্মি করা হয়। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে লিবিয়া থেকে অপহরণ করা মিসরীয় খ্রিষ্টানদের একটি দলের সদস্যদের শিরশ্ছেদ করে আইএস।

বনিয়ান মারসুস বাহিনীর মুখপাত্র রিদা ইসা জানান, বন্দিদের উদ্ধার করার সময় তাদেরকে প্রবলভাবে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছে আইএস। তিনি বলেন, 'আইএস সদস্যরা বেপরোয়াভাবে প্রতিহত করার চেষ্টা করছিল। তবে ভারি অস্ত্র দিয়ে অভিযান চালিয়ে তাদের প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দেওয়া হয়েছে। '

ইরাক ও সিরিয়ার বাইরের আইএস এর এখন বড় ঘাঁটি সিরতে। স্থানীয় কর্মকর্তাদের দাবিকে উদ্ধৃত করে রয়টার্স জানায়, সিরতেতে বৃহস্পতিবারের অভিযানে অন্তত ২০ আইএস সদস্য নিহত হয়েছে।


মন্তব্য