kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিদেশি শত্রুদের মোকাবেলায় গৌরবময় অটোমান ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে চান এরদোয়ান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৫৮



বিদেশি শত্রুদের মোকাবেলায় গৌরবময় অটোমান ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে চান এরদোয়ান

ইরাকের মসুলে ইরাকি বাহিনীর আইএস বিরোধী সফল অভিযানে থাকতে না পারা এবং সিরিয়ায় কুর্দিদের সাম্প্রতিক অগ্রগতির পরিপ্রেক্ষিতে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তায়েপ এরদোয়ান বুধবার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন “আমাদের হাড়ে আঘাত লাগা পর্যন্ত আমরা আর অপেক্ষা করব না বরং তার আগেই আমরা শত্রুদেরকে উৎখাতে একাই লড়াই করব। ”
বুধবার তার প্রাসাদে বক্তব্য দানকালে এরদোয়ান তুরস্কের বিরুদ্ধে বিদেশি শক্তিগুলোর ষড়যন্ত্রের একটি চিত্রও তুলে ধরেন।

তিনি অভিযোগ করেন, বিদেশি শত্রুরা তুরস্ককে এর গৌরবময় অটোমান ও সেলজুক অতীত ভুলিয়ে দিতে চায়। যেসময় তুরস্কের পূর্ব পুরুষরা মধ্রপ্রাচ্য সহ মধ্য এশিয়া পর্যন্ত বিস্তৃত ভূখণ্ড নিয়ন্ত্রণ করতেন।
তার সরকারের প্রতি অনুগত স্থানীয় প্রশাসকদের এক বৈঠকে তিনি বলেন, “এখন থেকে আর আমরা সমস্যা আমাদের দরজায় এসে কড়া নাড়া পর্যন্ত অপেক্ষা করব না, তরবারি আমাদের ত্বক ও মাংস ভেদ করে হাড়ে ছোঁয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করব না, সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো এসে আমাদের ওপর হামলা চালানো পর্যন্ত অপেক্ষা করব না”।
“যারাই বিভক্তি সৃষ্টিকারী সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোকে সমর্থন করবে আমরা তাদের গলা টিপে ধরব”, কুর্দি পিকেকে যোদ্ধাদের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি একথা বলেন। পিকেকে গত প্রায় ৩০ বছর ধরে তুরস্কের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আসছে। উত্তর ইরাকে সংগঠনটির বেশ কয়েকটি ঘাঁটি আছে। এছাড়া সিরিয়ায় সংগঠনটির শাখা রয়েছে।
“তারা যেখানেই থাকুক না কেন আমরা তাদের খুঁজে বের করে ধ্বংস করব। আমি খুব স্পষ্ট করেই একথা বলছি: বিদেশের মাটিতে তারা শান্তিতে থাকার জন্য একটি জায়গাও পাবে না। ”
সম্প্রতি এরদোয়ান তার বক্তব্যগুলোতে ক্রমাগত যুদ্ধংদেহী মনোভাব প্রকাশ করে চলেছেন। সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য হওয়া সত্ত্বেও ইরাকে যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন আইএস বিরোধী লড়াইয়ে জায়গা না পাওয়ায় এরদোয়ান অসন্তুষ্ট হয়েছেন। এছাড়া সিরিয়ায় আইএসবিরোধী লড়াইয়ে কুর্দি যোদ্ধাদের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার কারণেও ক্ষুব্ধ এরদোয়ান।
সূত্র: রয়টার্স


মন্তব্য