kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সঙ্গীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা, ইন্দোনেশিয়ায় বেত্রাঘাত তরুণীদের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০১:৪৬



সঙ্গীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা, ইন্দোনেশিয়ায় বেত্রাঘাত তরুণীদের

অপরাধ?‌ বিয়ের আগে ভালবাসার মানুষটির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হয়েছিলেন। এতে নাকি শরিয়া আইন ভাঙা হয়েছে!‌ তাই মসজিদে বসিয়ে বেত পেটাল ধর্মের রক্ষা কর্মকর্তারা।

যন্ত্রণায় কঁকিয়ে উঠলেন ১৩ তরুণ–তরুণী। বাকিরা তাড়িয়ে উপভোগ করল সেই শাস্তি। মুহূর্মুহূ হাততালিও দিল। ইন্দোনেশিয়ার আচের ঘটনা। ছবিটি প্রকাশ্যে আসতেই শুরু বিতর্ক। বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দীর্ঘ বিদ্রোহের পর ২০০১ সালে আচে প্রদেশকে স্বায়ত্তশাসনের অধিকার দেয় জাকার্তা। তখন থেকেই সেখানে শরিয়া আইন চালু হয়। ২০০৫ সালে ইন্দোনেশিয়া সরকারের সঙ্গে শান্তি চুক্তি করে আচে। শরিয়া আইন নিয়ে কড়াকড়ি বাড়ে। শরিয়া আইনে সমকামিতা, মদ্যপান, জুয়াখেলা নিষিদ্ধ। এসব করলেই শাস্তি বেত্রাঘাত। সোমবার আচের রাজধানী বান্দা আচের মসজিদে বসে বিচারসভা। ১৩ জনের মধ্যে দুজনের অপরাধ নাকি আরও গুরুতর!‌ ঝোঁপের মধ্যে বসে গল্পগুজব করছিলেন যে!‌ সন্তানসম্ভবা বলে আপাতত রেহাই পেয়েছেন এক তরুণী। কিন্তু সন্তান জন্মের পরই তাঁকে বেত মারা হবে। আচের ডেপুটি মেয়র জাইনাল আরিফিন জানিয়েছেন, ‘‌অপরাধ’‌ করলে শাস্তি পেতেই হবে। ছাড় নেই। যাতে ভবিষ্যতে কেউ এ রকম কাজ না করে। আচেতে দিনদিন শাস্তি দেয়ার ঘটনা বাড়ছে। বেশিরভাগ ‘‌অপরাধী’‌ই নারী। এই নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের সমালোচনা তারা পাত্তা দিতে নারাজ। উল্লেখ্য, ইন্দোনেশিয়ার ৯০ শতাংশ নাগরিক মুসলিম হলেও সেখানে ধর্ম নিয়ে এত কড়াকড়ি নেই।

সূত্র: আজকাল ‌‌


মন্তব্য