kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ধর্ষণ করে খুনের আগে মনিকাকে দেখানো হয়েছিল পর্ন ক্লিপস

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৬:৩৯



ধর্ষণ করে খুনের আগে মনিকাকে দেখানো হয়েছিল পর্ন ক্লিপস

পারফিউম ব্যবসায়ী মনিকা ঘুরডেকে ধর্ষণ করে খুনের আগে তাঁকে পর্ন ক্লিপস দেখতে বাধ্য করেছিল অভিযুক্ত রাজকুমার সিং। গতকাল গোয়া পুলিশের জেরার মুখে এই তথ্য স্বীকার করেছে অভিযুক্ত।

গোয়ার ডিআইজি বিমল গুপ্ত জানান, প্রাথমিকভাবে এটিকে নিছক দুর্ঘটনা বলে মনে হলেও, পরে বোঝা যায় পরিকল্পিতভাবেই ধর্ষণ ও খুন করা হয়েছে মনিকাকে। আগে রুজু হওয়া খুনের মামলার পাশাপাশি অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারায় ধর্ষণের মামলা রুজু হয়েছে। তথ্য প্রমাণের জন্য মনিকার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হওয়া চুলের ডিএনএ টেস্ট করা হচ্ছে। এই ঘটনার সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত ছিল কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ

ডিআইজি জানান, রাজকুমার মনিকার আবাসনের  নিরাপত্তারক্ষী হিসেবেই কর্মরত ছিল। ঘটনার দিন সে মনিকার ফ্ল্যাটে গিয়ে ডাকে। ওই ব্যবসায়ী ফ্ল্যাটের দরজা খুলতেই তাঁকে ছুরির ভয় দেখিয়ে জোর করে ঘরে ঢুকে পড়ে অভিযুক্ত। বাথরুমে নিয়ে গিয়ে হাত পা বেঁধে টাকার দাবি করে। পার্স থেকে হাজার চারেক টাকা পেয়েও সন্তুষ্টি না মেলায় মনিকার এটিএম কার্ড ও পিন নম্বর হাতায় রাজকুমার। এমনকী, তাঁর ফোন কেড়ে নিয়ে সেই ফোনেই তাঁকে তিনটে পর্ন ক্লিপস দেখতে বাধ্য করা হয়। এরপর মনিকার পায়ের বাঁধন খুলে তাঁকে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত। ধর্ষণের পরেই শ্বাসরোধ করে খুন করা হয় মনিকাকে।

হরিয়ানাতে বিকম ফার্স্ট ইয়ারে পড়ার সময়তেই নিরাপত্তারক্ষীর কাজ নিয়ে চলতি বছরের এপ্রিল মাসে গোয়া আসে বছর ২১-র রাজকুমার। পরে স্বপ্নারাজ ভ্যালির নিরাপত্তারক্ষীর কাজ নেয় সে। গত ৭ জুন প্রথম ফ্ল্যাটের খোঁজেই এখানে আসেন মনিকা। এমনকী, রাজকুমারের কাছ থেকে ফ্ল্যাট ভাড়ার খবরও নেন। এর কিছুদিনের মধ্যেই সেখানে থাকতে শুরু করেন তিনি। মনিকা যে একাই থাকেন তা প্রথমদিন থেকেই জানত রাজকুমার। জানা গেছে, নিজের গাড়ি ধোয়ার কাজেও রাজকুমারকে ব্যবহার করতেন মনিকা।  

২২ জুলাই সংশ্লিষ্ট আবাসনের অন্য বাসিন্দাদের সঙ্গে মনিকাও রাজকুমারের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ আনেন। ফলস্বরূপ চাকরি হারায় রাজকুমার। চাকরি থেকে বরখাস্তের পাশাপাশি অভিযুক্তের দু'মাসের বেতন (২০হাজার টাকা)-ও কেটে নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, চাকরি ফিরে পেতে মনিকার কাছে গিয়ে অভিযোগ ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য চাপ দেয় অভিযুক্ত। তাতে কাজ না হওয়াতেই সে গোয়ার অন্য একটি জায়গায় যায় চাকরি খুঁজতে। এদিকে, মাস দুয়েকের বেতন আর চাকরি হারিয়েই মনিকাকে খুনের পরিকল্পনা করে অভিযুক্ত।

এরপর অক্টোবর মাসের ২ ও ৩ তারিখে গাড়ি ধোয়ার মজুরি নিতে ফিরে আসে রাজকুমার। সেইসময়ই সকলের চোখ এড়িয়ে মনিকার আবাসনের ছাদে উঠে তিনদিন-দু’রাত লুকিয়ে থেকেই কাজ হাসিল করে ৬ তারিখ ভোর সাড়ে তিনটা নাগাদ আবাসন থেকে বেরিয়ে যায় রাজকুমার। ওইদিন রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ বোনের কোনও সাড়া না পেয়ে মনিকার ভাই প্রতিবেশীদের জানালে দরজা খুলে মনিকার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরে পুলিশ অভিযুক্ত রাজকুমার সিংকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতকে আদালতে তোলা হলে ছ’দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক।


মন্তব্য