kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সকালে অফিসে এসেই বসকে চুমু, আজব রীতি এই অফিসে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২২



সকালে অফিসে এসেই বসকে চুমু, আজব রীতি এই অফিসে

অফিসে এসেই লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে পড়েন মহিলা কর্মীরা। একটু পরেই নিজের ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন বস।

তখন সকলে একে একে গিয়ে বসের ঠোঁটে চুম্বন করেন ওই মহিলারা। না, এ কোনও খেয়ালখুশির ব্যাপার নয়। রীতমতো নিয়ম। চীনের এক অফিসে চলছে এ রকমই আজব রীতি।

বেজিংয়ের এই কম্পানির অর্ধেকের বেশি কর্মচারীই মহিলা। সকলকেই বাধ্যতামূলকভাবে এই রীতি মেনে চলতে হয়। শুধু চুম্বন করলেই হবে না, একেবারে ঠোঁটে চুমু দেওয়াই দস্তুর। চাকরি বাঁচাতে তাই দিনের পর দিন এই কাজ করে চলেছেন কর্মীরা।

তা কেন এ রকম নিয়ম ঠিক করেছে ওই কম্পানি? সংস্থাটির বস মনে করেন, ঠোঁটে চুমু দেওয়ার ফলে কর্মীরা কাজের জন্য উৎসাহ বোধ করবেন। শুধু তাই নয়, এর ফলে নাকি অফিসের প্রতি ভালবাসা ও এক ধরনের বন্ধুতার পরিবেশ তৈরি হয়। তাই তিনি এই নিয়ম লাগু করেছেন।

সম্প্রতি এই ঘটনার এক ভিডিও নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর তুমুল শোরগোল পড়েছে বিশ্বজুড়ে। কেন এ রকম একটা নিয়ম চলছে তা নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছে। কিন্তু জানা যাচ্ছে, এ সমালোচনা নতুন নয়। কেননা সব কর্মীই যে বসের ঠোঁটে চুমু দিতে ইচ্ছুক তা নয়। তাই সমালোচনা আগেও হয়েছিল। দু’জন মহিলা কর্মী এই নিয়ম মানতে নারাজ হন। তখন তাঁদের জোর করে কম্পানি থেকে বরখাস্ত করা হয়। সমস্ত সমালোচনা সত্ত্বেও এই নিয়ম চালিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর সংস্থার কর্ণধার। আর তাই চাকরি বাঁচাতে বসের ঠোঁটে চুম্বনকেই ভবিতব্য মেনে নিয়েছেন বহু মহিলা কর্মচারী।  

এদিকে কর্মসংস্থানে মহিলাদের যৌন হেনস্তা রুখতে নানা ব্যবস্থা নিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রশাসন। সেখানে প্রকাশ্যেই কীভাবে এ রীতি চলছে, তা নিয়ে আবারও প্রশ্ন উঠেছে।


মন্তব্য