kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সমুদ্র সৈকতে ভেসে উঠল ৩৫ ফুটের নীল তিমির পচাগলা দেহ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৫৩



সমুদ্র সৈকতে ভেসে উঠল ৩৫ ফুটের নীল তিমির পচাগলা দেহ

একই মাসে এই নিয়ে দু'বার। ফের ভারতের মহারাষ্ট্রের গুহাগড় সমুদ্র সৈকতে ভেসে উঠল নীল তিমির পচা গলা দেহ।

গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টা নাগাদ রত্নগিরি জেলার গুহাগর সমুদ্র সৈকতে পড়ে থাকতে দেখা যায় ৩৫ ফুটের একটি সুবিশাল নীল তিমির মৃতদেহ। মহারাষ্ট্রের বনদপ্তর সূত্রের খবর, একই বছরে এই নিয়ে চারবার নীল তিমির পচা মৃতদেহ ভেসে উঠল গুহাগর সমুদ্র সৈকতে।

স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মধ্যে বর্তমানে বিশ্বে সবচেয়ে বড় প্রাণী নীল তিমি। রত্নগিরির ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার বিকাশ জগপতের কথায়, 'খবর পেয়ে আমরা সকাল ৭টা নাগাদ সমুদ্র সৈকতে গিয়ে দেখি বিশালাকার মৃত নীল তিমি পড়ে রয়েছে। দেহের ভিতরের সব নাড়িভুঁড়ি বেরিয়ে এসেছে। দেহটি চুড়ান্ত মাত্রায় পচে গিয়েছে। আমাদের ধারণা, গভীর সমুদ্রে প্রায় ১৫ দিন আগেই তিমিটির মৃত্যু হয়েছে। '

বনদপ্তর জানিয়েছে, তিমিটির দেহ এতটাই পচে গিয়েছে যে মৃত্যুর কারণ জানতে ময়নাতদন্তও করা সম্ভব নয়। তবে টিস্যুর নমুণা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার জন্য স্টেট ম্যানগ্রোভ সেলে পাঠানো হচ্ছে। তিমিটির আকার সম্ভবত ৪২ ফুট। পচে যাওয়ায় তা ৩৫ ফুটের হয়ে গিয়েছে বলে অনুমাণ করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সমুদ্রে দূষণের জন্যই নীল তিমি ও ডলফিনের মৃত্যু হচ্ছে। মানুষের সৃষ্ট দূষণ সমুদ্রের জলকে বিষাক্ত করছে। যার কুপ্রভাব পড়ছে সামদ্রিক প্রাণীদের দেহে।
সূত্র-এই সময়


মন্তব্য