kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কোনোভাবেই সরবো না : ট্রাম্প

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:০২



কোনোভাবেই সরবো না : ট্রাম্প

নারীদের নিয়ে অবমাননাকর বক্তব‌্যের অডিও টেপ ফাঁস হওয়ার পর তাৎক্ষণিক ক্ষমা চেয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দৌড় থেকে কোনোভাবেই সরে দাঁড়াবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভোটের ঠিক একমাস আগে ২০০৫ সালের ওই টেপ ফাঁস হওয়ার পর ট্রাম্পের দলের মধ‌্যেই তাকে বাদ দিয়ে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী মাইক পেন্সকে প্রেসিডেন্ট পদের প্রার্থী করার দাবি জোরালো হয়ে উঠেছে।

এর জবাবে শনিবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে ট্রাম্প বলেছেন, আমার সরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা শূন‌্য। এখনও অবিশ্বাষ‌্য সমর্থন পাচ্ছেন দাবি করে নিউ ইয়র্কের এই ব‌্যবসায়ী বলেছেন, সমর্থকদের তিনি হতাশ করতে পারবেন না।    

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, শুক্রবার ওয়াশিংটন পোস্ট ওই টেপ ফাঁস করার পর থেকে এ পর্যন্ত রিপাবলিকান পার্টির অন্তত ১০ জন জ‌্যেষ্ঠ নেতা হয় ট্রাম্পকে ভোট না দেওয়ার কথা বলেছেন, নয়ত তাকে সরে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন জন ম‌্যাককিন, যিনি নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়নপ্রত‌্য‌াশী ছিলেন।

ম‌্যাককিন বলেছেন, টেপে ট্রাম্পের যে বক্তব‌্য শোনা গেছে, তাতে তাকে সমর্থন জানানোর আর কোনো পথ থাকল না। আর সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কন্ডোলিৎসা রাইস বলেছেন, যথেষ্ট হয়েছে! ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হতে পারে না। তার সরে দাঁড়ানো উচিত। টেপে ফাঁস হওয়া ট্রাম্পের বক্তব‌্যকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন বলেছেন ভয়ংকর। আর ট্রাম্পের রানিং মেট মাইক পেন্স ওই ধরনের বক্তব‌্য নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেও ট্রাম্প আমেরিকার জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়ায় সন্তুষ্ট বলে জানিয়েছেন।    

২০০৫ সালের ওই টেপে এনবিসি টিভির উপস্থাপক বিলি ব্যাশের সঙ্গে কথপোকথনে ট্রাম্পকে বলতে শোনা যায়, তুমি যদি তারকা হও, তবে মেয়েদের নিয়ে যা কিছু করতে পার। ওই কথোপকথনে বিবাহিত এক অভিনেত্রীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে উদগ্র আগ্রহের কথাও বলতে শোনা যায় ট্রাম্পকে, যিনি বর্তমানে তৃতীয় স্ত্রী মেলানিয়াকে নিয়ে ঘর করছেন। মেলানিয়া বলেছেন, ট্রাম্পের ওই বক্তব‌্য কোনোভাবেই গ্রহণযোগ‌্য নয়। যে স্বামীকে তিনি চেনেন, তার সঙ্গে একে মেলানো যায় না। তারপরও তিনি আশা করছেন, আমেরিকার জনগণ ট্রাম্পকে মাফ করে দেবে।  

 


মন্তব্য