kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


হারিকেন ম্যাথিউয়ের শঙ্কায় ফ্লোরিডায় আতঙ্ক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:২৯



হারিকেন ম্যাথিউয়ের শঙ্কায় ফ্লোরিডায় আতঙ্ক

হাইতি, ডমিনিকান রিপাবলিকসহ ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে তাণ্ডব চালিয়ে মানবিক বিপর্যয় তৈরি এবং বৃহস্পতিবার বাহামা দ্বীপপুঞ্জ এলাকায় আছড়ে পড়ার পর এবার যুক্তরাষ্ট্রের দিকে এগুচ্ছে হারিকেন ম্যাথিউ। হারিকেনটি এখন তীব্রতার দিক দিয়ে বিপজ্জনক ৪ মাত্রার ঝড় হিসেবে (পাঁচটি পর্যায়ে হারিকেনের তীব্রতা নির্ণয় করা হয়) যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

শুক্রবার হারিকেনটি ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের পূর্ব উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ১০ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সরাসরি এতো বড় ধরনের ঝড় আঘাত হানেনি বলে উল্লেখ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম রয়টার্স। আর ফ্লোরিডায় ১১৮ বছরের মধ্যে এতো শক্তিশালী ঝড় আঘাত হানেনি বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ। ‌

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এর খবরে বলা হয়েছে এরইমধ্যে ফ্লোরিডার দুটি কাউন্টিতে শনিবার সকাল সাতটা পর্যন্ত কারফিউ ঘোষণা করা হয়েছে। ২০ লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ১ কোটি ২০ লাখ মানুষকে হারিকেন সতর্কতায় রাখা হয়েছে।  

উল্লেখ্য, হাইতির উপকূলে গত মঙ্গলবার আঘাত হানে শক্তিশালী হারিকেন ম্যাথিউ। হারিকেনের আঘাতের কারণে এখন পর্যন্ত হাইতিতে ২৮৩ প্রাণহানির খবর নিশ্চিত করেছে দেশটির সরকার। ম্যাথিউর তাণ্ডবে হাজহার হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছেন। ২০১০ সালে হাইতির ভূমিকম্পের পর এবারের হারিকেনকে দেশটির সবচেয়ে বড় বিপর্যয় বলে উল্লেখ করেছে জাতিসংঘ। হাইতির পর বৃহস্পতিবার বাহামা দ্বীপপুঞ্জে আঘাত হানে ম্যাথিউ। সেখানকার ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে এখনও জানা যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়াবিদরা বলছেন, শুক্রবার ৪ মাত্রার ঝড় হিসেবে ম্যাথিউ ফ্লোরিডা উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। হারিকেনের তীব্রতার মাত্রার দিক দিয়ে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মাত্রা। সেসময় ১১ ফুট পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাস হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

মিয়ামিভিত্তিক ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টারের উপপরিচালক সিএনএন-কে বলেন, 'হারিকেন পরবর্তী জলোচ্ছ্বাসের কারণে বেশিরভাগ প্রাণহানি হয়ে থাকে বলে আমরা জানি। ' এর আগে সর্বশেষ ২০০৫ সালে ১১০ মাইলেরও বেশি বেগে হারিকেন উইলমা যুক্তরাষ্ট্র উপকূলে আছড়ে পড়েছিল।

জেফ মাসটার্স নামে এক হারিকেন বিশেষজ্ঞ তার ওয়েবসাইটে লিখেছেন ম্যাথিউর কারণে কেপ ক্যানাভারাল এলাকা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এ এলাকাটিকে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা ও যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনী মহাকাশযান উৎক্ষেপণের প্রাথমিক কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করে থাকে। সতর্কতা পাওয়ার পর কর্মী ও যন্ত্রপাতির সুরক্ষায় ব্যবস্থা নিয়েছে নাসা।

হারিকেন ম্যাথিউ মঙ্গলবার ক্যারিবীয় সাগর থেকে উৎপত্তি হয়ে সরে গিয়ে হাইতি ও ডমিনিকান রিপাবলিকে সজোরে আঘাত ঝড়টিকে ক্যারিবীয় অঞ্চলে গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী সামুদ্রিক ঝড় হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। এর প্রভাবে বাহামা ও ফ্লোরিডা উপকূলেও ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করছেন আবহাওয়াবিদরা। তীব্রতা অনুযায়ী ঝড়টিকে 'ক্যাটাগরি ৪' বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

ঘণ্টায় ২৩০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া ও প্রবল বৃষ্টিপাত নিয়ে হারিকেনটি বৃহস্পতিবার হাইতিতে আঘাত হানে। এই ক্ষয়ক্ষতির জন্য দেশটির বহুল প্রতীক্ষিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে।


মন্তব্য