kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত সিরিয়ার উদ্ধারকারীরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:০৮



নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত সিরিয়ার উদ্ধারকারীরা

অপেক্ষা আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার। ৭ অক্টোবর ঘোষিত হতে চলেছে নোবেল শান্তি পুরস্কার।

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার অসহায় বাসিন্দাদের সাহায্যার্থে উল্লেখযোগ্য ভূমিকার জন্য পুরস্কারের অন্যতম দাবিদার এই মানবাধিকার সংগঠন।

সিরিয়ার লাগাতার যুদ্ধে জখম ও নিরাশ্রয় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে হোয়াইট হেলমেটস বাহিনী। আগাগোড়া স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে গঠিত বাহিনীর উদ্যোগে প্রাণরক্ষা হয়েছে এযাবত কয়েক হাজার দুর্গতের। হোয়াইট হেলমেটসের সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন পেশায় কৃষক, দর্জি, বেকার, ইঞ্জিনিয়ারস চিত্রশিল্পী, শিক্ষক, ফার্মাসিস্ট ও ছাত্ররা। ধর্ম ও রাজনীতির বিভাজনকে আমল না দিয়ে পীড়িত মানুষের সাহায্যে তাঁরা এগিয়ে এসেছেন। আলেপ্পো, ইদলিব, লাটাকিয়া, হোমস, ডেরা এবং দামাস্কাস জুড়ে ত্রাণের ডালি হাতে ছুটে বেড়াচ্ছেন প্রায় ৩০০০ হোয়াইট হেলমেটস সদস্য। বোমায় চূর্ণ বাড়ির ধ্বংসস্তূপ থেকে কখনও উদ্ধার হচ্ছে স্বজনহারা বছর চারেকের ছেলে, আবার মিসাইলের আঘাতে ছিটকে পড়ে প্রাণ হারাতে বসা বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিত্‍সার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। বোমারু বিমানের নিয়মিত হানা আর স্নাইপার ফায়ারকে তুচ্ছ করে বিপদ থেকে পীড়িতদের উদ্ধার করতে এই বাহিনীর জুড়ি নেই। এ বছরের নোবেল শান্তি পুরস্কার জিততে হোয়াইট হেলমেটসের হয়ে প্রচার শুরু করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার গোষ্ঠী দ্য সিরিয়া ক্যাম্পেন। তাদের সমর্থন জানিয়েছে বিশ্বজুড়ে প্রায় ১৩০টি সংগঠন।

যুদ্ধ প্রাঙ্গনে কাজ করার সময় পদে পদে বিপদ ওঁত পেতে থাকে, জানিয়েছেন হোয়াইট হেলমেটসের আলেপ্পো শাখার এক শীর্ষ সদস্য আম্মার আওসালমো। তাঁর দাবি, উদ্ধারকাজ চালাতে গিয়ে ইতোমধ্যে সংগঠনের ১৩৪ জন সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন। কোরআন উদ্ধৃত করে তৈরি হয়েছে তাঁদের নীতি: একটি প্রাণ বাঁচানোর মানে গোটা মানব সভ্যতাকে রক্ষা করা। আওসালমোর কথায়, 'মানুষ আমাদের বিশ্বাস করে। দুর্গতদের চোখের দিকে তাকালে দেখতে পাই, তাঁদের সাহায্য প্রয়োজন। আলেপ্পোয় যুদ্ধ শুরু হলে বাসিন্দারা মনে করতেন, আমরাই তাঁদের পরম সহায়। '

শুদ্ধক্ষেত্রে কাজ করার সময় প্রাণের ঝুঁকি এড়াতে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আর্জি জানিয়েছেন হোয়াইট হেলমেটসের প্রধান রায়েদ আল সালেহ। নিরুপদ্রবে উদ্ধারকাজ চালানোর জন্য সাময়িক ভাবে সিরিয়ার আকাশে 'নো ফ্লাইং জোন' ঘোষণার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। এইসময়

 


মন্তব্য