kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সিরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম পাঠিয়েছে রাশিয়া

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১২:২৩



সিরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম পাঠিয়েছে রাশিয়া

সিরিয়ার টারটাস বন্দর এলাকায় নিজেদের নৌঘাঁটিতে একটি এস-৩০০ বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম পাঠানোর কথা নিশ্চিত করেছে রাশিয়া। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেজর জেনারেল ইগর কোনাশেনকোভ জানিয়েছেন, আকাশ পথে ঘাঁটিটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সিস্টেমটি সেখানে পাঠানো হয়েছে।

পশ্চিমের সঙ্গে রাশিয়ার বাড়তে থাকা উত্তেজনার মধ্যে সিরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনের ঘটনাটি ঘটল। সিরিয়ার জিহাদি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে বিমান আক্রমণ সমন্বিত করার চেষ্টা নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনা সোমবার স্থগিত করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে গত মাসে ওয়াশিংটন ও মস্কোর মধ্যস্থতায় শুরু হওয়া সপ্তাহব্যাপী একটি যুদ্ধবিরতি ভেঙে পড়ে। এক সংবাদ সম্মেলনে জেনারেল কোনাশেনকোভ বলেন, স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি, এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম সম্পূর্ণভাবে প্রতিরক্ষামূলক এবং এটি কারো জন্য কোনো হুমকি নয়। এস-৩০০ মোতায়েনে আমাদের পশ্চিমা অংশীদারদের মধ্যে কেনো এত শঙ্কা দেখা দিয়েছে তা পরিষ্কার না। এটি এর আগে পূর্ব ভূমধ্যসাগরে মোতায়েন রুশ যুদ্ধজাহাজ মস্কোভায় স্থাপিত এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেমের মতো একই ধরনের বলে জানান তিনি।

এই প্রথম স্থল থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ এই ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেমটি নিজেদের সীমানার বাইরে মোতায়েন করলো রাশিয়া। এর আগে সিরিয়ার লাতাকিয়ার কাছে রুশ বিমান ঘাঁটিতে অপর একটি অত্যাধুনিক বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম এস-৪০০ মোতায়েন করা হয়েছিল। এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র সিস্টেম অত্যন্ত গতিশীল একটি ব্যবস্থা। এর রাডার, লঞ্চার এবং কমান্ড সিস্টেম অনুসরণযোগ্য বেশ কয়েকটি গাড়িতে বহনযোগ্য। বহু চাকার লঞ্চারের ওপরও এই সিস্টেমটি স্থাপন করা যায়। এটি বিমান, ক্রুইজ এবং ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধের উদ্দেশ্যে বিশ্বে এ পর্যন্ত তৈরি করা এরিয়া ডিফেন্স সিস্টেমের মধ্যে অন্যতম মারাত্মক অস্ত্র।

 


মন্তব্য