kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'নিজের মেয়ে' বলে ১৯ পাকিস্তানি তরুণীকে রক্ষা করলেন সুষমা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:০৪



'নিজের মেয়ে' বলে ১৯ পাকিস্তানি তরুণীকে রক্ষা করলেন সুষমা

সপ্তাহখানেক আগে জাতিসঙ্ঘের জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে পাকিস্তান এবং সে দেশের জঙ্গি কার্যকলাপকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। কিন্তু দু’ দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক এক জায়গায় আর ‘অতিথি’ অন্য জায়গায়।

হোক না পাকিস্তানি। তবু নিজের ‘মেয়ে’ বলে কাছে টেনে নিলেন তিনি।

গত সপ্তাহে সার্জিকাল স্ট্রাইকের আগে দিল্লিতে একটি ইউথ ফেস্টিভ্যালে যোগ দিতে আসেন ১৯ জন পাকিস্তানি মেয়ে। উরি হামলার পর থেকে দু’ দেশের সম্পর্ক ক্রমাগত খারাপ হতে শুরু করে। তার মধ্যেও অব্যাহত রয়েছে জঙ্গি হামলার প্রচেষ্টা। গত ২৯ সেপ্টেম্বর ভারতীয় কমান্ডোরা পাক অধিকৃত কাশ্মীরের তিন কিলোমিটার ভেতরে গিয়ে সার্জিকাল স্ট্রাইক চালায়। তখন ওই ১৯ কন্যা দিল্লিতেই উপস্থিত।

যুদ্ধ লাগতে পারে যে কোনও সময়, এই আশঙ্কায় সীমান্তের দুই পারের সাধারণ মানুষ আতঙ্কের প্রহর গুনছেন। ফেস্টিভ্যালের উদ্যোক্তারাও সে সময় পাকিস্তানি কন্যাদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন। তবে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ এঁদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করেন। ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয় তাঁদের জন্য। যত ক্ষণ না তাঁরা পাকিস্তানে নিজেদের বাড়িতে পৌঁছেছেন তত ক্ষণ নিরাপত্তার যাতে কোনও রকম খামতি না হয় তার দিকে সজাগ দৃষ্টি রেখেছিলেন সুষমা।

ওই ১৯ জনের মধ্যে এক জন আলিয়া হারির একটি টুইটে লেখেন, ‘ভারতে এসে অভিভূত। অতিথিকে এঁরা ঈশ্বর জ্ঞান করেন। ’ সুষমা-ও পাল্টা টুইটে আলিয়াকে লেখেন, ‘আলিয়া, আমি তোমাদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত ছিলাম। কারণ সীমান্তের যো পাড়েই হোক ‘বেটিয়াঁ’ তো সকলের কাছেই সমান। ’ আলিয়াও বিদেশমন্ত্রী ধন্যবাদ জানিয়ে লেখেন, ‘আপনার মেয়ে হওয়ার গৌরব পেয়েছি, আর কী চাই। প্রত্যেকে সুরক্ষিত বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছেন। খুব আনন্দিত এবং অসংখ্য ধন্যবাদ। ’


মন্তব্য