kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইরাকে আইএসের হামলায় নিহত ১৮

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:২৪



ইরাকে আইএসের হামলায় নিহত ১৮

ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় শহরে তিকরিতের কাছাকাছি এক তল্লাশিচৌকিতে গুলিবর্ষণের পর শহরটির প্রবেশপথে দুটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দুটি শিশুসহ ১৮ জনকে হত‌্যা করেছে জঙ্গিরা। শনিবার চালানো এসব হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

রাজধানী বাগদাদ থেকে ১৫০ কিলোমিটার উত্তরের এই শহরটি ২০১৫ সালের এপ্রিলে আইএসের দখলমুক্ত হয়। তারপর থেকে শহরটিতে আইএসের চালানো এটি প্রথম হামলা। ভোর ৫টার দিকে ওই তল্লাশিচৌকিতে প্রথম হামলা চালায় জঙ্গিরা। তাদের গুলিতে চৌকিতে দায়িত্বপালনরত পাঁচ নিরাপত্তা সদস‌্য ও পাশে দাঁড়ানো দুই অল্প বয়সী বেসামরিক নিহত হন।

এখানে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এক জঙ্গিও নিহত হন বলে জানিয়েছে পুলিশ ও ওই এলাকার নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত সালাহউদ্দিন অপারেশন্স কমান্ডের সূত্রগুলো। অপর দুই জঙ্গি আরো সাত কিলোমিটার এগিয়ে শহরের প্রান্তে এসে একজন পিকআপ ট্রাকে রাখা বিস্ফোরকের বিস্ফোরণ ঘটান ও অপরজন বিস্ফোরকযুক্ত আত্মঘাতী পোশাকে বিস্ফোরণ ঘটান। এতে নিরাপত্তা বাহিনীর পাশাপাশি নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত শিয়া বেসামরিক বাহিনীর তিন সদস‌্যসহ ১১ জন নিহত হন, আহত হন আরো ২১ জন। আইএসকে সমর্থনকারী বার্তা সংস্থা আমাক জানিয়েছে, আইএস এসব হামলা চালিয়েছে এবং হামলায় আইএসের চার জঙ্গি অংশ নিয়েছে।

পুলিশ ও হাশিদ প্রত‌্যাখ‌্যানকারীদের লক্ষ‌্য করে এসব হামলা চালানো হয়েছে বলে আইএসের সমর্থকদের প্রচার করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে। শিয়া বেসামরিক বাহিনীকে বোঝাতে হাশিদ প্রত‌্যাখ‌্যানকারী শব্দবন্ধটি ব‌্যবহার করে সুন্নি জঙ্গিরা। আইএসের কাছ থেকে পুনরুদ্ধার করার পর থেকে তিকরিতে কড়া নিরাপত্তা ব‌্যবস্থা বলবৎ ছিল। এসব হামলার পর নিরাপত্তা ব‌্যবস্থা আরো জোরদার করেছে পুলিশ। গত সপ্তাহে তিকরিত থেকে ১০০ কিলোমিটার উত্তরের শিরকাত জেলা আইএসের কবল থেকে পুনরুদ্ধার করেছে ইরাকি সামরিক বাহিনী। আইএসের দখল থেকে ইরাকের অন‌্যতম বৃহত্তম শহর মসুল পুনরুদ্ধারের লক্ষ‌্যে আরো উত্তরে এগিয়ে যাচ্ছে বাহিনীটি।

 


মন্তব্য