kalerkantho


ভারতকে সীমান্তে বেড়া মজবুত করার প্রযুক্তি দিতে চায় ইসরায়েল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:২০



ভারতকে সীমান্তে বেড়া মজবুত করার প্রযুক্তি দিতে চায় ইসরায়েল

সীমান্ত সন্ত্রাসসহ নানা ক্ষেত্রে ‘একই ধরনের চ্যালেঞ্জের’ সামনে ভারত ও ইসরায়েল, এমনই অভিমত জানালেন এ দেশে নিযুক্ত ইসরায়েলি রাষ্ট্রদূত ড্যানিয়েল কার্মন। উরির সেনা ঘাঁটিতে কয়েকদিন আগের ভয়াবহ জঙ্গি হামলার পর ইসরায়েল সীমান্তে বেড়া মজবুত করার প্রযুক্তি দিয়ে ভারতকে সাহায্য করতে চায় বলে জানিয়েছেন তিনি।

সন্ত্রাসবাদীরা নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাকিস্তান থেকে ঢুকে উরিতে রবিবার ভোরে হামলা করে বলে দাবি ভারতের। দাবির সমর্থনে একাধিক তথ্যপ্রমাণও তুলে দেয়া হয়েছে ভারতে নিযুক্ত পাকিস্তানি অ্যাম্বাসাডর বসিত আলির হাতে। সেদিক থেকে ইসরায়েলের ভারতকে প্রযুক্তিগত সহায়তার প্রস্তাবে বন্ধুত্বের পাশাপাশি সন্ত্রাস রোখার দায়বদ্ধতার বার্তা রয়েছে বলে মনে করছে পর্যবেক্ষক মহল।

শীর্ষ ইসরায়েলি কূটনীতিকটি জানিয়েছেন, উরির ঘটনাটিকে উদ্বেগের সঙ্গেই দেখছেন তাঁরা। সন্ত্রাসবাদ দমনে সহযোগিতা করা দুটি দেশের সম্পর্কে বরাবরের বৈশিষ্ঠ্য থেকে যাবে বলেও দৃঢ় ভাবে জানান তিনি।

সীমান্ত সুরক্ষায় তাঁদের প্রস্তুতি কোন পর্যায়ে থাকে, তা ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহের শেষ ইজরায়েল সফরে তাঁকে দেখানো হয়েছে বলেও জানান কার্মন।

তিনি বলেন, ইসরায়েলের হাতে প্রযুক্তি আছে কারণ সে বিপদের মুখে দাঁড়িয়ে। একই ধরনের অভিজ্ঞতা দুটি দেশেরই। সমাধান হাতের মধ্যে আছে।

তার ওপর দাঁড়িয়ে আমরা একসঙ্গে চলতে পারি। সহযোগিতার অন্য ক্ষেত্রগুলি আমরা দেখিয়েছি। এক্ষেত্রেও সহযোগিতা থাকা উচিত। উরি হামলার পরিপ্রেক্ষিতে কার্মন জানান, সন্ত্রাসবাদ দমন, প্রতিরক্ষা ও অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তায় ভারতের সঙ্গে দৈনন্দিন ভিত্তিতে ইসরায়েলের সহযোগিতার সম্পর্ক ছিল, আছে ও থাকবে।

কার্মনের কথায়, সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা করা প্রয়োজন। এর কৌশল আছে। আন্তর্জাতিক, কূটনীতির রাস্তাও আছে। আমি নিশ্চিত এবং বিশ্বাস করি যে, ভারত নিশ্চয়ই জানে, তার কী করা উচিত।

কার্মন জানান, সাইবার বিপদ মোকাবিলায় তারা কী করছে, সে ব্যাপারে ইজরায়েলের কাছে যে ধারণাগত ও প্রযুক্তিগত জ্ঞান আছে, তা তারা বিনিময়ে আগ্রহী। সাইবার বিপদ কোনো একটি নির্দিষ্ট দেশ নয়, যে কোনো জায়গা থেকেই আসতে পারে বলেও অভিমত তাঁর।

সূত্র: এবিপি আনন্দ


মন্তব্য