kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আনন্দবাজার পত্রিকার খবর

সৈন্য সংখ্যায় আমেরিকা-রাশিয়ার থেকে এগিয়ে ভারত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:৫৫



সৈন্য সংখ্যায় আমেরিকা-রাশিয়ার থেকে এগিয়ে ভারত

বিশ্বের চতুর্থ শক্তিশালী সেনাবাহিনী হিসেবে ফের উঠে এল ভারতীয় সেনাবাহিনীর নাম। আমেরিকা, রাশিয়া আর চীনের পরই ভারত।

সৈন্যদলের আকারের নিরিখে অবশ্য ইতিমধ্যেই আমেরিকা এবং রাশিয়াকে ভারত ছাপিয়ে গেছে। সেই হিসেবে গোটা পৃথিবীতে ভারতের চেয়ে এখন এগিয়ে শুধুমাত্র চীন।
সৈন্যসংখ্যার বিচারে পাকিস্তান পঞ্চম স্থানে থাকলেও সেনাবাহিনীর অন্যান্য দক্ষতার বিচারে পিছিয়ে থাকায় শক্তিশালী সেনাবাহিনীর তালিকায় প্রথম দশেও ঠাঁই হয়নি সে দেশের।
সাম্প্রতিকতম সমীক্ষা বলছে, পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিধর ১০টি দেশের তালিকায় প্রথম স্থানে অবশ্যই আমেরিকা। দ্বিতীয় রাশিয়া, তৃতীয় চিন এবং চতুর্থ ভারত। প্রথম পাঁচে থাকা অপর দেশ হল ব্রিটেন। এর পর যথাক্রমে রয়েছে ফ্রান্স ও জার্মানি। তবে অষ্টম, নবম ও দশম স্থানে রাখা হয়েছে তুরস্ক, দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানকে। তবে, প্রথম দশে থাকা দেশগুলির মধ্যে চীন, ভারত, আমেরিকা ও রাশিয়া কিন্তু সৈন্যসংখ্যার বিচারে অন্য ছ’টি দেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে। এই নিরিখে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে চিন। সে দেশের সেনাবাহিনীতে যোদ্ধার সংখ্যা ২২ লক্ষ ৮৫ হাজার। এ ছাড়াও আধাসামরিক বাহিনীতে রয়েছেন প্রায় ২৩ লক্ষ কর্মী। সব মিলিয়ে সংখ্যাটা ৪৬ লক্ষের কাছাকাছি। ভারতের সেনাবাহিনীতে এই মুহূর্তে কর্মীর সংখ্যা ১৩ লক্ষ ২৫ হাজার। সঙ্গে আধাসামরিক বাহিনীতে রয়েছেন আরও প্রায় ২২ লক্ষ। সব মিলিয়ে ৩৫ লক্ষের মতো। রাশিয়ার সেনাবাহিনী ও আধাসামরিক ফৌজ মিলিয়ে মোট সৈন্যসংখ্যা ৩২ লক্ষের কিছু বেশি। আর আমেরিকার সেনাবাহিনীতে এখন কর্মীর সংখ্যা ১৪ লক্ষের মতো। আধাসামরিক বাহিনী বা রিজার্ভ ফোর্সে রয়েছে আরও প্রায় ৮ লক্ষ। মোট ২২ লক্ষ। ভারতের চেয়ে এই হিসেবে রাশিয়া সামান্য পিছিয়ে। বেশ খানিকটা পিছিয়ে আমেরিকা।
তবে শুধু সৈন্যসংখ্যা দিয়ে সেনাবাহিনীর প্রকৃত শক্তি বিচার করেন না প্রতিরক্ষা বিশারদরা। সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষণ কতটা জোরদার, পেশাদারিত্বের মাপকাঠিতে বাহিনী কতটা এগিয়ে, কতটা আধুনিক যুদ্ধাস্ত্র এবং সরঞ্জাম ব্যবহার করে একটি দেশের সেনা, যুদ্ধ বা প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাফল্য কতটা পেয়েছে বাহিনী, এই সব নানা মাপকাঠি মাথায় রেখেই সমীক্ষক সংস্থা শক্তিশালী সেনাবাহিনীর র‌্যাঙ্কিং নির্ধারণ করে। ট্যাঙ্কের সংখ্যায় পৃথিবীর সব দেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে থাকায় রাশিয়া শক্তিধরের তালিকায় ভারত আর চিনকে টপকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। আর অত্যাধুনিক যুদ্ধ কৌশলে ব্যবহারে সবচেয়ে দক্ষ হওয়ায় মার্কিন বাহিনী সবার আগে স্থান পেয়েছে। তার পরেই চিন ও ভারতের জায়গা। কিন্তু অত্যাধুনিক যুদ্ধে অদক্ষতা, পেশাদারিত্বের অভার, প্রশিক্ষণের ঘাটতি-সহ নানা খামতির কারণে সৈন্যসংখ্যার বিচারে পঞ্চম স্থানে থাকা সত্ত্বেও পাকিস্তানের সেনা প্রথম দশ শক্তিধর সেনাবাহিনীর তালিকার ধারেকাছেও পৌঁছতে পারেনি। বলছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা।


মন্তব্য