kalerkantho


পাকা সোনার কমোড! বাথরুমের দরজায় নিরাপত্তারক্ষীর পাহারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:৫২



পাকা সোনার কমোড! বাথরুমের দরজায় নিরাপত্তারক্ষীর পাহারা

সোনার এই কমোড নিয়ে তো কোনো ঝুঁকি নেয়া যায় না। তাই বাথরুমের দরজার বাইরে কমোড পাহারা দেয়ার জন্য সব সময় একজন নিরাপত্তাকর্মীও মোতায়েন থাকবেন। শুধু তাই নয়, বাথরুমে ব্যাগ নিয়েও কেউ ঢুকতে পারবেন না।

আপনার বাড়ির বাথরুমের কমোডটির দাম কত? রোজ ব্যবহারের সময়ে তা হয়তো ভেবে দেখেন না। কিন্তু সেই কমোডই যদি সোনার হয়?

নিউ ইয়র্কের গুগেইনহেম মিউজিয়ামে ১৮ ক্যারেট সোনা দিয়ে তৈরি একটি কমোড বসানো হয়েছে। মিউজিয়ামের পাঁচ তলার একটি বাথরুমে এই কমোডটি বসানো হয়েছে। সাধারণ দর্শকরাই এই কমোডটি ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু সোনার এই কমোড নিয়ে তো কোনো ঝুঁকি নেয়া যায় না। তাই বাথরুমের দরজার বাইরে কমোড পাহারা দেয়ার জন্য সবসময়ে একজন নিরাপত্তাকর্মীও মোতায়েন থাকবেন। শুধু তাই নয়, বাথরুমে ব্যাগ নিয়েও কেউ ঢুকতে পারবেন না। প্রত্যেকবার বাথরুম ব্যবহারের পরে নিরাপত্তারক্ষীরা ভিতরে ঢুকে দেখে নেবেন কমোড অক্ষত আছে কি না।

মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ এখনো কমোডের মূল্য নিয়ে মুখ না খুললেও শোনা যাচ্ছে এই কমোডের দাম প্রায় ২০ মিলিয়ন ডলার।

কমোডের খবর ছড়িয়ে পড়তেই অবশ্য মিউজিয়ামের অন্যান্য জিনিস ছেড়ে বাথরুমের বাইরে লম্বা লাইন দিয়েছেন দর্শকরা। হাজার হোক, সোনার কমোড। তা ব্যবহারের সুযোগ আর কে ছাড়তে চায়! মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ অবশ্য এই কমোডটিকেও একটি শিল্পকর্ম বলেই দাবি করছেন। যার নাম দেয়া হয়েছে ‘আমেরিকা’।

সূত্র: এবেলা


মন্তব্য