kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যৌন মিলনে প্লাস্টিক ব্যাগ, রক্তাক্ত প্রেমিক যুগল!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৭:২৫



যৌন মিলনে প্লাস্টিক ব্যাগ, রক্তাক্ত প্রেমিক যুগল!

কনডমের পরিবর্তে প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ভিয়েতনামের এক প্রেমিকযুগল। প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার করে শারিরীকভাবে মিলিত হওয়ায় দুজনের গোপোনাঙ্গে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে।

ওই ক্ষত থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। প্রেমিকযুগল এখন ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন।
ভিয়েতনামের ‘টিউই ট্রে’ নামের এক সংবাদপত্রে সংবাটি প্রচারিত হয়েছে। সেখান থেকে জানা যায়, প্রেমিকযুগল হ্যানয়ের একটি কলেজের আন্ডারগ্রাজুয়েট শিক্ষার্থী। এর আগে কখনো তারা যৌনমিলন করেননি। প্রেমিক ছেলেটি খুবই লাজুক। তাই লজ্জায় দোকানে গিয়ে কনডম কিনতে পারেননি। যৌনমিলনে প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার করেছেন। কিন্তু প্লাস্টিক ব্যাগ মানুষের স্পর্শকাতর গোপনাঙ্গের জন্য উপযুক্ত নয়। সেজন্য ক্ষত হয়ে প্রচুর পরিমাণে রক্তক্ষরণ হয়েছে দুজনের।
হাসপাতালের ডাক্তার নগুয়েন দ্যা লুয়াং জানান, তারা সবসময় কনডমের পরিবর্তে অন্যকিছু ব্যবহারে নিরুৎসাহিত করেন। কারণ প্লাস্টিক ব্যাগ বা অন্য কোনো বস্তু মানুষের যৌনমিলনের উপযুক্ত করে তৈরি করা হয় না। প্লাস্টিক স্পর্শকাতর স্থানের পাতলা চামড়ায় সহজেই আঁচড় দিয়ে রক্তাক্ত করতে পারে।
প্রেমিকযুগলের অদ্ভুত বিষয়টি সামনে এলে সম্প্রতি একটি জরিপ চালানো হয় হ্যানয়ে। জরিপে দেখা যায়, হ্যানয় মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং হ্যানয় মেডিকেল কলেজের প্রায় ২৭০০ জন আন্ডারগ্রাজুয়েট ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে প্রায় ১৬ ভাগ ছাত্র-ছাত্রী যৌনমিলন করে। এর তিন ভাগের এক ভাগ ছাত্র প্রথম যৌনমিলনে কনডম ব্যবহার করেছেন। আর চার ভাগের একভাগ ছাত্র দোকানে গিয়ে কনডম কিনতে লজ্জাবোধ করেন।
আর ছাত্র-ছাত্রীর বিরাট একটা অংশের যৌনতা বিষয়ে যথাযথ জ্ঞান নেই। আবার অনেক শিক্ষক ও পিতামাতাও তাদের ছেলেমেয়ে বা ছাত্র-ছাত্রীকে যৌনশিক্ষা দিতে লজ্জাবোধ করেন। অথচ সেখানে যৌনশিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই প্রেমিকযুগলও যদি কোনো সমস্যা ছাড়াই তাদের যৌনকর্ম চালিয়ে যেতেন, তাহলে হয়ত বিষয়টি সামনে আসত না।


মন্তব্য