kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নিউমোনিয়া বিতর্কে হিলারি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:১৬



নিউমোনিয়া বিতর্কে হিলারি

বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না হিলারি ক্লিন্টনের! আজ ইমেল, তো কাল ক্লিন্টন ফাউন্ডেশনে আসা অনুদান! যখন থেকে প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে নেমেছেন, তখন  থেকেই কোনো না কোনও বিতর্ক তাড়া করেছে এ ডেমোক্রেট প্রার্থীকে৷ তালিকায় নবম সংযোজন নিউমোনিয়া!

হ্যাঁ! নিউমোনিয়া-ই হয়েছে হিলারি ক্লিন্টনের৷ যার জের ধরে ভোটযুদ্ধের চূড়ান্ত পর্বে  আপাতত বাইশ গজের বাইরে তিনি৷ তাঁর চিকিৎসক লিসা বার্ডাক জানিয়েছেন, বেশ কিছুদিন ধরেই টানা কাশি হচ্ছিল হিলারির৷ শুক্রবার ডাক্তারি পরীক্ষায় তাঁর নিউমোনিয়া ধরা পড়ে৷ তাঁকে অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়েছে এবং কিছু দিন বিশ্রাম নিতে বলা হয়েছে৷ হোয়াইট হাউস দখলের লড়াই যখন চলছে জোরেশোরে, তখন দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর এমন অবস্থা চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে বহু সমর্থকের কপালে। কারণ, ভোটের দিন যত এগিয়ে আসছে, ততই বাড়ছে কর্মসূচির বহরও৷ এ পরিস্থিতিতে অনেকেরই আশঙ্কা, হিলারি বিশ্রাম নিলে থমকে যেতে পারে প্রচারের কাজ৷ যেমন, সোমবারই ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রচারে যাওয়ার কথা ছিল হিলারি ক্লিন্টনের৷ কিন্তু, অসুস্থতার কারণে তাঁর সেই সফর বাতিল করা হয়েছে৷ সূত্রের খবর, আগামী কয়েক দিনে এমন আরো কর্মসূচি রদবদলের সম্ভাবনা রয়েছে৷

ঘটনার সূত্রপাত রবিবার৷ ৯/১১-য় নিহতদের শ্রদ্ধা জানাতে অন্য রাজনীতিকদের মতো ম্যানহাটনে 'গ্রাউন্ড জিরো'য় যান ডেমোক্রেটিক প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীও৷ রাজনীতিকে দূরে রেখে সমবেদনার হাত বাড়িয়ে দেন নিহতদের পরিজনদের উদ্দেশ্যে৷ কিন্তু, তারপরই বাঁধে বিপত্তি! আচমকাই অনুষ্ঠান ছেড়ে বেরিয়ে যান হিলারি৷ গাড়িতে ওঠার সময়, কিছুটা হোঁচটও খেতে দেখা যায় তাঁকে৷ এ হোঁচট ঘিরেই বিভিন্ন মহল থেকে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করে৷ প্রথমে হিলারির প্রচার দলের পক্ষে জানানো হয়, 'অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি৷ কাছেই মেয়ে চেলসির বাড়ি৷ সেখানে গিয়ে কিছুক্ষণ আরাম করছেন তিনি৷' সবকিছু ঠিক আছে বোঝাতে, মেয়ের বাড়ি থেকে বেরনোর সময়, হাসিমুখে হিলারি জানিয়েও যান যে, তিনি ভাল আছেন৷ কিন্তু, তাতে বিড়ম্বনা তো কমেইনি, উল্টো আরো বেড়ে যায়! নিউমোনিয়ার কথা স্বীকার করে নেন হিলারির চিকিৎসক৷ এ পরিস্থিতিতে অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন, শুক্রবার যদি নিউমোনিয়া ধরা পড়ে, তাহলে তা রবিবার কেন জানানো হলো? তবে কি হিলারি প্রকাশ্যে অসুস্থ হয়ে পড়াতেই, বাধ্য হয়ে তাঁর নিউমোনিয়ার কথা জানানো হলো? অবশ্য, হিলারির চিকিৎসকের বক্তব্য, 'ওষুধপত্র খাওয়ার পর অনেকটাই ভাল রয়েছেন তিনি৷ দ্রুত সুস্থও হয়ে উঠছেন৷'

হিলারির স্বাস্থ্য
এই প্রথম নয়৷ ২০১২ সালেও হিলারি ক্লিন্টনের স্বাস্থ্য নিয়ে বড়সড় সমস্যা দেখা দিয়েছিল৷ তখন তিনি আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷ আচমকাই মাথা ঘুরে পড়ে যান তিনি৷ রক্ত জমাট বেঁধে যায় তাঁর মাথায়৷ পরে অবশ্য তাঁকে সুস্থ বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা৷ গত বছর তাঁর চিকিৎসক বলেন, '৬৭ বছরের হিলারি দেশের প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য একদম ফিট৷' যদিও, কয়েকদিন আগেই একটি জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে, হঠাৎ করে কাশতে শুরু করেন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী৷ প্রায় মিনিট দুয়েক পর তাঁর কাশি বন্ধ হয়৷ কাশির কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে, সেবার অবশ্য ঠাট্টার ছলে তিনি বলেছিলেন, 'ট্রাম্পের কথা ভাবলেই আমার অ্যালার্জি হয়!'

ট্রাম্প কেন চুপ?
এই গোটা পর্বে যাঁর আচরণ সব থেকে বেশি বিস্ময়কর, তিনি হলেন হিলারির প্রতিদ্বন্দ্বী ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ ভোটের লড়াই শুরু হওয়ার লগ্ন থেকে যিনি এবং যাঁর সমর্থকরা অভিযোগ করে আসছেন, 'হিলারি অসুস্থ৷ প্রেসিডেন্ট হওয়ার মতো ফিটনেস তাঁর নেই৷' সেই ট্রাম্প ক্যাম্প কিন্তু এই নিউমোনিয়া পর্ব নিয়ে একেবারেই নীরব৷ এমনকি সূত্রের দাবি, হিলারি যাতে দ্রুত সেরে ওঠেন, ডোনাল্ড সেই শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন৷ যদিও, এ সৌজন্যের জন্য রিপাবলিকান প্রার্থীকে এত সহজে ছাড় দিতে রাজি নন বিশেষজ্ঞরা৷ তাঁদের বক্তব্য, এ সময় হিলারির স্বাস্থ্য তুলে খোঁচা দিতে গেলে হিতে বিপরীত হতে পারে- এমন আশঙ্কা থেকেই গোটা বিষয়টি থেকে নিজেকে সরিয়ে রেখেছেন ডোনাল্ড৷ তবে, কারণ যাই হোক না কেন, হিলারির অসুস্থতার জের ধরে  ট্রাম্পের গোলাবর্ষণে সাময়িক বিরতি পড়ায় খুশি অনেকেই৷

আসরে ওবামা দম্পতি
হিলারি অসুস্থ হলেও তাঁর হয়ে ময়দানে নামছেন ওবামা দম্পতি৷ মঙ্গলবার ফিলাডেলফিয়ায় একদা প্রতিপক্ষের হয়ে প্রচার করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা৷ ২০০৮-এ যাঁকে হারিয়েই প্রেসিডেন্ট পদে দলের মনোনয়ন জিতেছিলেন তিনি৷ তবে, সে সংঘাত আজ অতীত৷ এই দুই ডেমোক্রেট এখন ঘনিষ্ঠ বন্ধু বলেই পরিচিত৷ ইতিমধ্যে হিলারির হয়ে একদফা প্রচারও করেছেন ওবামা৷ ১৬ তারিখ হিলারির হয়ে সভা করবেন ওবামা-পত্নী মিশেলও৷

 


মন্তব্য