kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ডয়চে ভেলের প্রতিবেদন

আইএসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তিন সিরীয় শরণার্থী গ্রেপ্তার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:৫৬



আইএসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তিন সিরীয় শরণার্থী গ্রেপ্তার

তথাকথিত জঙ্গি গোষ্ঠী ‘ইসলামিক স্টেট-' এর সঙ্গে সম্পৃক্ত সন্দেহে তিন সিরীয় শরণার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে জার্মানির পুলিশ৷ টানা কয়েকসপ্তাহ ধরে তদন্তের পর তাদের গ্রেপ্তার করা হয়৷
জার্মানির কেন্দ্রীয় পাবলিক প্রসিকিটরের কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে মঙ্গলবার জানানো হয়েছে যে, জার্মানির কেন্দ্রীয় পুলিশ এবং বিশেষ বাহিনী জিএসজি ৯ সন্দেহভাজনদের ধরতে ভোররাতে অভিযান চালায়৷ স্থানীয় গণমাধ্যমে অবশ্য আগেই এই খবর প্রকাশিত হয়েছিল৷ অভিযানে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ তারা সবাই সিরিয়ার নাগরিক৷ প্রসিকিউটরের কার্যালয় থেকে পাঠানো বিবৃতিতে তাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে মাহির আল-এইচ (১৭), মোহামেদ এ. (২৬) এবং ইব্রাহিম এম. (১৮)৷ জার্মান পুলিশ সাধারণত জঙ্গি সন্দেহে আটকদের পুরো নাম প্রকাশ করেনা৷
পুলিশের তদন্ত অনুযায়ী, গ্রেপ্তারকৃতরা বিদেশি জঙ্গি সংগঠন তথাকথিত ইসলামিক স্টেট (আইএস)-এর সদস্য বলে সন্দেহ করা হচ্ছে৷ আইএসের নির্দেশ বাস্তবায়নের বা পরবর্তী নির্দেশ অনুযায়ী কর্মকাণ্ড পরিচালনার উদ্দেশ্য নিয়ে গত নভেম্বরে জার্মানিতে আসে তারা৷
গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে মাহির আল-এইচ. সিরিয়ার রাকায় কিভাবে অস্ত্র এবং বিস্ফোরক ব্যবহার করতে হয় সে সম্পর্কে গত বছরের সেপ্টেম্বরে প্রশিক্ষণ নিয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে৷ প্রশিক্ষণ গ্রহণের একমাস পর সে এবং অপর দুই সন্দেহভাজন আইএস নিয়ন্ত্রিত এলাকার বাইরে হামলা পরিচালনার উদ্দেশ্যে জার্মানিতে আসে৷
আইএস তাদের সিরিয়ার পাসপোর্ট এবং চার অংকের ভালো পরিমান মার্কিন ডলার দিয়েছে বলে তদন্তকারীরা মনে করছেন৷ সঙ্গে আগে থেকে ইনস্টল করা কমিউনিকেশনস প্রোগ্রামসহ মোবাইল ফোনও সন্দেহভাজনদের দেয়া হয়েছিল৷ তারা সিরিয়া থেকে তুরস্ক এবং গ্রিস হয়ে জার্মানিতে এসেছিল বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে৷
তবে সন্দেহভাজনরা হামলা পরিচালনার কোনো ধরনের সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা পেয়েছে কিনা তা এখনো তদন্তকারীরা জানাতে পারেননি৷ জার্মানির শ্লেষভিগ-হলস্টাইন রাজ্যে অভিযান চালিয়ে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের গ্রেপ্তার করেছে৷ এ সময় তাদের বাড়িও তল্লাশি করা হয়েছে৷ অভিযানে নিরাপত্তা বাহিনীর দু'শ' সদস্য অংশ নেয় বলে জানা গেছে৷


মন্তব্য