kalerkantho


বাসস্টপে ফেলে গিয়েছিল মা, রাস্তার কুকুরের পেটে ২ দিনের শিশু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:৩২



বাসস্টপে ফেলে গিয়েছিল মা, রাস্তার কুকুরের পেটে ২ দিনের শিশু

বাসস্টপে একরত্তি কন্যা সন্তানকে ফেলে চলে গিয়েছিল মা। ভাগ্যের পরিহাসে নৃশংস ও মর্মান্তিকভাবে শেষ হয়ে গেল ওই ছোট্টপ্রাণ। ২ দিনের শিশুকে সামনে পেয়ে লোভ সামলাতে পারেনি রাস্তার ক্ষুধার্ত কুকুর। তার ধারালো দাঁত যখন শিশুটির সারা শরীরকে ক্ষতবিক্ষত করে চলেছে, যন্ত্রণায় চিৎ‌কার করা ছাড়া আর কিছুই করতে পারেনি অবলা ছোট্ট প্রাণ।

আশপাশের লোকজন বাচ্চার পরিত্রাহী চিৎ‌কার শুনে যখন কুকুরটিকে কোনওক্রমে তাড়িয়েছে, ততক্ষণে শিশুটির শরীরের বেশকিছু অংশ চলে গিয়েছে কুকুরের পেটে। আর প্রাণটা। এতকিছুর পর সেটা আর শরীরে কীভাবে থাকে। পৃথিবীর আলো দেখার পর দুই দিনে চরম থেকে চরমতম অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে শিশুটি।

শিশুটির এমন চরম পরিণতির জন্য কুকুরটি অনেকাংশে দায়ী হলেও, দায় কোনও অংশে কম নয় সর্বশক্তিমান মনুষ্যজাতিরও। নইলে আজও কখনও আস্তাকুঁড়ে, কখনও ট্রেনে-বাসে নিজের সন্তানকে ফেলে চলে যান বাবা-মায়েরা! স্থানীয়রা বলছেন, রবিবার সারারাত হায়দ্রাবাদের ভিকারাবাদ বাসস্টপের সামনে ওই বাচ্চাটাকে নিয়ে বসেছিলেন দুই মহিলা। ভোর হতেই তাঁরা শিশুটিকে ফেলে রেখে পালিয়ে যান।

আর তারপরই এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

বাচ্চাটাকে কারা ফেলে রেখে গিয়েছিল, তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, ওই এলাকায় আগেও শিশুদের পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। তাদের বিভিন্ন হোমে পাঠানো হয়। তবে, এমন ঘটনা এই প্রথম।

২০১৪ সালে কাড়াপা শহরে রাজীব গান্ধী ইনস্টিটিউট অফ মেজিক্যাল সায়েন্সের সামনে একটি পরিত্যক্ত শিশুকে খেয়ে ফেলেছিল রাস্তার কুকুর। সূত্র: এই সময়


মন্তব্য