kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বুর্জ খলিফায় ২২ অ্যাপার্টমেন্টের মালিক এই ভারতীয় ব্যবসায়ী!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:১৫



বুর্জ খলিফায় ২২ অ্যাপার্টমেন্টের মালিক এই ভারতীয় ব্যবসায়ী!

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু অট্টালিকা। বুর্জ খলিফা।

আর সেখানেই এক, দুই নয় একেবারে ২২টি অ্যাপার্টমেন্টের মালিক তিনি।

নাম জর্জ ভি নিরিয়াপরমবিল। দুবাইয়ে বসবাসকারী ভারতীয় ব্যবসায়ী। যিনি জানিয়ে রাখলেন, বাইশে থেমে থাকতে চান না। যদি ভাল ‘ডিল’ পান, তাহলে আরও অ্যাপার্টমেন্ট কিনতে তাঁর আপত্তি নেই।

কে এই জর্জ? কী-ই বা তাঁর পরিচয়? জানা গেছে, জর্জের উত্থান কোনো রূপকথার কম কিছু নয়। ছোটবেলায় বাবার সঙ্গে তুলো বিক্রির ব্যবসা করতেন জর্জ।

এরপর, তুলোর ফেলে দেয়া বীজগুলিকে ফের বিক্রি করতেন তিনি। জর্জ জানান, সেই সময় অনেকেই জানতেন না যে, তুলোর বীজ দিয়ে আঠা তৈরি করা সম্ভব।

এরপর একইভাবে তেঁতুলের বীজ বিক্রি করা শুরু করলেন তিনি। সেগুলির চাহিদা আবার পশুখাদ্য হিসেবে ছিল।

১৯৭৬ সালে শারজায় প্রথমবার পা রাখেন জর্জ। ক্ষুরধার ব্যবসায়ী মনের জর্জের বুঝতে অসুবিধে হয়নি যে এখানে বাতানুকূল যন্ত্রের চাহিদা তুঙ্গে।

প্রথমে মেকানিক তারপর ধীরে ধীরে নিজের ব্যবসা দাঁড় করানো। এখন জিও গ্রুপ অফ ইন্ডাস্ট্রিজের মালিক তিনি।

জানা গেছে, কেরলের আদি বাসিন্দা এই ব্যবসায়ী বুর্জ খলিফার সবচেয়ে বড় ব্যক্তিগত মালিক। বিশ্বের অন্যতম ধনী জায়গা বলে পরিচিত এই অঞ্চল।

বুর্জে মোট ৯০০টি অ্যাপার্টমেন্ট রয়েছে। তার মধ্যে ২২টি কিনেছেন জর্জ। এর মধ্যে পাঁচটি ভাড়া দিয়েছেন। বাকিগুলির জন্য যোগ্য ভাড়াটিয়া খুঁজছেন এই ব্যবসায়ী।

কিন্তু, আচমকা এতগুলি অ্যাপার্টমেন্ট কেন? জর্জ জানান, একবার তাঁর এক বন্ধু মজা করে তাঁকে বলেছিলেন, ‘এই যে বুর্জ খলিফা দেখছো, এখানে তুমি ঢুকতেও পারবে না। ’

ব্যস, ২০১০ সালে একটা বিজ্ঞাপন বের হয়। সেখানে বলা হয়েছিল, বুর্জে ভাড়ায় নেওয়ার জন্য অ্যাপার্টমেন্ট খালি রয়েছে। দেরি করেননি জর্জ। সেইদিনেই ভাড়া নেন। পরের দিন থেকে থাকা শুরু।

বাকিটা ইতিহাস! এখন বুর্জ নামের সঙ্গে জর্জ নামটি প্রায় সমার্থক হয়ে উঠেছে।

সূত্র: এবিপি আনন্দ


মন্তব্য