kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পাকিস্তানে অনার কিলিং : হত্যার আগে সামিয়াকে ধর্ষণ করা হয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:৪৪



পাকিস্তানে অনার কিলিং : হত্যার আগে সামিয়াকে ধর্ষণ করা হয়

ব্রিটিশ পাসপোর্টধারী নারী সামিয়া শাহিদকে পাকিস্তানে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। এর আগে জানানো হয়, সামিয়ার সাবেক স্বামী পারিবারিক সম্মান রক্ষার্থে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে যা অনার কিলিং হিসেবে পরিচিত।

পাকিস্তানে গত কয়েক বছর এ রূপ অনার কিলিং এর পরিমাণ বেড়েছে। লাহোরের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল সিএনএনকে বলেন, এ ঘটনায় স্থানীয় এক পুলিশ সদস্যকে আটক করা হয়েছে। ২৮ বছর বয়সী সামিয়াকে হত্যার পর হত্যাকারীকে দেশ থেকে পালিয়ে যেতে সহায়তা করা ও হত্যার বিভিন্ন আলামত নষ্ট করার অপরাধে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
 
পাকিস্তানের উত্তর পাঞ্জাব প্রদেশের ঝেলুম জেলায় সামিয়া শাহিদের পরিবার বাস করে। ইংল্যান্ডের ব্রাডফোর্ড থেকে সেখানে বেড়াতে এসেছিলেন সামিয়া। জুলাই মাসে এখানেই তাকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করা হয়। সামিয়ার পরিবার প্রাথমিকভাবে দাবি করেছিল, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু তার স্বামী সৈয়দ মুকতার কাজাম দাবি করেন, সামিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, পরে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে শ্বাসরোধে সামিয়ার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। সামিয়ার প্রথম স্বামী আগে থেকেই তার আত্মীয় ছিল।

বিয়ের পর সামিয়া ব্রিটেনে যান এবং সেখান থেকে তার প্রথম স্বামী চৌধুরী মোহাম্মদ শাকিলকে ডিভোর্স দিয়ে কাজামকে বিয়ে করেন। এ ঘটনার বেশ পরে সামিয়ার বাবা বিভিন্ন অজুহাতে দেশে নিয়ে আসেন এবং সামিয়াকে হত্যা করা হয়। সামিয়াকে হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে তার সাবেক স্বামী শাকিলের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে হত্যা সহায়তার অভিযোগে আটক আছে সামিয়ার বাবা চৌধুরী শাহিদ ও চাচা হক নওয়াজ। উল্লেখ্য, শাকিলকে ডিভোর্স দিয়ে সামিয়া যুক্তরাজ্যে তার দ্বিতীয় স্বামী কাজামকে বিয়ে করেছিলেন।

 


মন্তব্য