kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কায়ানির ছেলের বিনিময়ে জাওয়াহিরির মেয়েদের মুক্তি‌

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:০২



কায়ানির ছেলের বিনিময়ে জাওয়াহিরির মেয়েদের মুক্তি‌

পাকিস্তানে এখনো শক্ত ঘাঁটি রয়েছে আল-কায়দার। আরও একবার প্রমাণিত।

আল–কায়দা প্রধান আয়মান আল–জাওয়াহিরির দুই মেয়ে ও এক আত্মীয়াকে আটকে রেখেছিল পাক সেনা। তাদের ছাড়াতে প্রাক্তন পাক সেনাপ্রধান আশফাক পারভেজ কায়ানির ছেলেকে অপহরণ করে নেয় জঙ্গিরা। অবসরপ্রাপ্ত হলেও পাক সেনা এবং গোয়েন্দা বিভাগে এখনো যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে কায়ানির। তাই তাঁর ছেলেকে অপহরণ খুব সহজ নয়। প্রথমে পাক সেনা রাজি না থাকলেও পরে কায়ানির ছেলের পরিবর্তে জাওয়াহিরির মেয়েদের ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। ঘটনা গত জুলাইয়ের শেষে বা আগস্টে। তবে পাক সেনা মুখে সেকথা স্বীকার করেনি। আল-কায়দা অবশ্য আত্মপ্রচারের সুযোগ ছাড়েনি। তাদের পত্রিকা আল-মাসরা ফলাও করে ছাপিয়েছে সেই গল্প। প্রমাণ দিতে প্রতিবেদনে এক জঙ্গি নেতার টুইটও তুলে ধরা হয়েছে। জঙ্গি নেতা লিখেছে, কীভাবে পাক সেনাকে চাপে ফেলে জাওয়াহিরির মেয়েদের ছাড়িয়ে আনা হয়েছে। লেখার সঙ্গে কায়ানির একটি ছবিও পোস্ট করা হয়েছে। যদিও সেই অ্যাকাউন্টটি এখন ডিলিট করে দিয়েছে টুইটার। আল-কায়দার পত্রিকা এও জানিয়েছে, জাওয়াহিরির মেয়েরা উদ্ধারের পর মিশরে ফিরে গেছে। উল্লেখ্য, পাকিস্তানের অ্যাবটাবাদেই লুকিয়ে ছিল ওসামা বিন লাদেন। সেখানেই তাকে খুন করে মার্কিন সেনা। আমেরিকাকে খবর পাচারের জন্য পাকিস্তান সেনাকেই দায়ী করে আল-কায়দা। এ জন্য সবসময় প্রতিশোধ নিতে তৎপর তারা। উল্লেখ্য, প্রাক্তন পাক প্রেসিডেন্ট ইউসুফ রাজা গিলানির ছেলে আলি হায়দার গিলানিকেও অপহরণ করেছিল তারা। মুক্তি দেয় ২০১৬-এর মে মাসে। নিঃশর্তে নয়। পরিবর্তে ছাড়িয়ে নেয় জাওয়াহিরির পরিবারের সদস্যদের। ‌‌‌

সূত্র: আজকাল


মন্তব্য