kalerkantho


যৌনকর্মী বলায় মামলা করলেন ট্রাম্পের স্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৪:১৯



যৌনকর্মী বলায় মামলা করলেন ট্রাম্পের স্ত্রী

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প একসময় যৌনকর্মী ছিলেন বলে দাবি করায় ১৫ কোটি (১৫০ মিলিয়ন) ডলারের মানহানির মামলা হয়েছে।

মেলানিয়া নব্বই দশকে যৌনকর্মী ছিলেন বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করায় ব্রিটিশ পত্রিকা ডেইলি মেইল এবং একজন মার্কিন ব্লগারে বিরুদ্ধে এ মামলা করা হয়।

স্লোভানিয়ায় জন্ম নেওয়া ৪৬ বছর বয়সী মেলানিয়া নব্বইয়ের দশকে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন করে মডেলিং পেশায় জড়ান। ২০০৫ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, নব্বই দশকে নিউ ইয়র্কে একটি যৌন সেবাদাতা এসকর্টে খণ্ডকালীন কর্মী হিসেবে কাজ করার সময় মেলানিয়ার সঙ্গে ট্রাম্পের পরিচয় হয়।

স্লোভানিয়ান ম্যাগাজিন সুজির বরাতে মেইল জানায়, মেলানিয়া যেই মডেলিং সংস্থায় কাজ করতেন তা যৌন এসকর্টসেবাও দিত।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি মেলানিয়ার অনুনোমোদিত জীবনী লেখক স্লোভানিয়ান সাংবাদিক বোজান পোজারের উদ্ধৃত্তি দিয়ে জানায়, মেলানিয়া ১৯৯৫ সালে নিউ ইয়র্কে নুড ছবির জন্য পোজ দিয়েছিলেন। ওই বছরই ট্রাম্পের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়। যদিও সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী ট্রাম্প-মেলানিয়ার প্রথম সাক্ষাৎ হয়েছিল ১৯৯৮ সালে।

অন্যদিকে মার্কিন ব্লগার ওয়েবস্টার টার্পলে লেখেন, মেলানিয়ার কাছ থেকে উচ্চদরে এস্কর্ট সেবা নিয়েছেন এমন ধনী খদ্দেরদের কথা জনসাধারণের মাঝে ফাঁস হয়ে যাওয়ার ভয়ে তিনি ভীত-সন্ত্রস্ত। এ কারণে তিনি প্রচণ্ড স্নায়ুবৈকল্যে ভুগছেন বলেও মন্তব্য করেন এই ব্লগার।

এদিকে মেলানিয়ানার আইনজীবী চার্লস হার্ডার দাবি করেছেন, ট্রাম্পপত্নীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ ডাহা মিথ্যা। মেলানিয়া ১৯৯৫ সালে এসকর্ট সেবায় জড়িত ছিল বলা হলেও তিনি যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন ১৯৯৬ সালে।

আইনজীবী বলেন, অভিযুক্তরা ট্রাম্পপত্নী সম্পর্কে বিভিন্ন মিথ্যা কথা প্রচার করেছে, যার তার পেশাগত ও ব্যক্তিগত সম্মানহানি করেছে। এতে তার আনুমানিক ১৫ কোটি ডলারের ক্ষতি হয়েছে।


মন্তব্য