kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভারতীয় সেনা সদস্যের প্রাণ বাঁচালেন এক গৃহবধূ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৭:১৮



ভারতীয় সেনা সদস্যের প্রাণ বাঁচালেন এক গৃহবধূ

উপস্থিত বুদ্ধির জোরে ভারতের সেনাবাহিনীর এক জওয়ানের প্রাণ বাঁচালেন এক গৃহবধূ। হিমাচল প্রদেশের সিমলায় এই ঘটনার পর মধ্যবয়সী ওই মহিলার বুদ্ধি ও সাহসের প্রশংসা করছেন সবাই।

যখন আহত সহকর্মীকে নিয়ে কী করবেন, তা সেনাবাহিনীর অন্য জওয়ানরাই বুঝে উঠতে পারছিলেন না, তখন নিজেই এগিয়ে এসে মুকেশ কুমার নামে ওই জওয়ানের প্রাণ বাঁচালেন তিনি।

গত ২০ আগস্ট আসাম রাইফেলস-এর একটি দল জুটোগ ক্যান্টনমেন্টের বানুতি এলাকায় মার্চ পাস্ট করছিল। সেই সময় একদল কুকুর তাদের লক্ষ্য করে তেড়ে আসে। কুকুরের ভয়ে পালাতে গিয়ে রাস্তার পাশের একটি ৫০ ফুট গভীর গর্তে পড়ে যান মুকেশ কুমার। গর্তে মাথা ঠুকে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে যান তিনি। এই দেখে চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করেন অন্য জওয়ানরা। কিন্তু সেই পরিস্থিতিতে ঠিক করা উচিত, তা ভেবে পাননি কেউই।

চেঁচামেচি শুনে এগিয়ে আসেন বীনা শর্মা নামে ৪২ বছরের এই গৃহবধূ। তিনিই উদ্যোগ নিয়ে অন্য জওয়ানদের দিয়ে মুকেশ কুমারকে ওপরে তোলেন। জ্ঞান হারানো ওই জওয়ান আর বেঁচে নেই, এ কথা ভেবে আরও হতবুদ্ধি হয়ে পড়েন অন্য জওয়ানরা। কিন্তু বীনা শর্মা মুখে মুখ লাগিয়ে তাঁর শ্বাস-প্রশ্বাস চালুর চেষ্টা করতে থাকেন। নিজের ৭২ বছরের বৃদ্ধ শ্বশুরকে গাড়ি নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে আসতে ফোনে নির্দেশ দেন তিনি।

ওই জওয়ানরা কেউ গাড়ি চালাতে না পারায় শ্বশুরকে নিয়ে তিনিই মুকেশকে প্রথমে জুটোগের সেনা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে তাঁকে ইন্দিরা গান্ধী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় মুকেশের প্রাণরক্ষা করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।


মন্তব্য