kalerkantho


নারীদের মন্দিরে প্রবেশে বাধা নয় : আদালত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ এপ্রিল, ২০১৬ ২৩:১৩



নারীদের মন্দিরে প্রবেশে বাধা নয় : আদালত

ভারতের কিছু কিছু স্থানের মন্দিরগুলোতে দীর্ঘদিন ধরেই ঢুকতে পারতো না নারীরা। এ বিষয়ে ভারতের আদালতে একটি রিটের রায়ে বলা হয়েছে, এখন থেকে মহারাষ্ট্রের সব মন্দিরে ঢুকে যে কোনো স্থানে বসে প্রার্থনা করতে পারবেন নারীরা।
শুক্রবার মহারাষ্ট্রের রাজধানী মুম্বাই হাইকোর্ট এই আদেশ দিয়েছে। এর মধ্য দিয়ে মহারাষ্ট্রে মন্দিরের মূল অংশে নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকার শত বছরের পুরোনো প্রথার অবসান হলো এবং নারীরা প্রার্থনা করার মতো একটি মৌলিক অধিকার ফিরে পেল।
আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, কোনো মন্দির বা কোনো ব্যক্তি নারীদের মন্দিরে ঢুকতে বাধা সৃষ্টি করলে মহারাষ্ট্র আইনে তাদের ছয় মাসের কারাদণ্ড হতে পারে। এই রায়ে মহারাষ্ট্রের শনি মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশে আপাতত আর কোনো বাধা রইল না।
মহারাষ্ট্রের আহমেদনগরে শনি সিংনাপুর মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে জনস্বার্থ মামলাটি করেছিলেন আইনজীবী নীলিমা বার্তক ও সমাজকর্মী বিদ্যা। এতে অভিযোগ করা হয়, মন্দিরে ঢুকতে নারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা বেআইনি ও এটি মানবাধিকার লঙ্ঘন করে।
মামলার শুনানিতে মুম্বাই হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ডিএইচ বাঘেলা ও বিচারপতি এমএস সোনকের ডিভিশন বেঞ্চ এই পর্যবেক্ষণ দিয়েছে। বিচারপতি বাঘেলা বলেন, ‘কোনও জায়গায় নারীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারে এমন কোনো আইন নেই। যদি আপনি পুরুষদের অনুমতি দেন, তবে নারীদেরও অনুমতি দিতে হবে। যদি একজন পুরুষ বিগ্রহের সামনে গিয়ে প্রার্থনা করতে পারেন, তবে একজন নারী কেন পারবেন না? তাদের অধিকার রক্ষা করা রাজ্য সরকারের কর্তব্য। '
মহারাষ্ট্র হিন্দু ‘প্লেস অব ওয়ারশিপ’ আইন অনুযায়ী, যদি কোনো মন্দির বা ব্যক্তি কাউকে মন্দিরে প্রবেশে নিষেধ করেন, তবে তাকে ছয় মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড করতে হতে পারে, একথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন বিচারপতি।


মন্তব্য