kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বুরকিনি বনাম বিকিনি : তোপের মুখে ফরাসি মন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ এপ্রিল, ২০১৬ ২২:৪৩



বুরকিনি বনাম বিকিনি : তোপের মুখে ফরাসি মন্ত্রী

মার্কস এন্ড স্পেন্সার মুসলিম মহিলাদের জন্য শরীর ঢাকা যে সাঁতারের পোশাক ছেড়েছে, ফ্রান্সের এক মন্ত্রী তার সমালোচনা করে তোপের মুখে পড়েছেন।
যে মুসলিম মহিলারা এই সুইমস্যুট বা ‘বুরকিনি’ পছন্দ করছেন তাদেরকে তিনি ‘দাসপ্রথা সমর্থনকারী নিগ্রোদের’ সঙ্গে তুলনা করেন।
ফ্রান্সের মহিলা অধিকার মন্ত্রী লরান রোসিনিওল ফ্রান্সের এক টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই মন্তব্য করেন।
তিনি আরও বলেন, যেসব ব্রান্ড হিজাব সহ মুসলিম মহিলাদের পোশাক বাজারজাত করছে তারা দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছে।
তবে পরে অবশ্য তিনি তার মন্তব্যে ‘নিগ্রো’ শব্দটি ব্যবহারের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।
উল্লেখ্য, ফ্রান্স সহ ইউরোপের অনেক দেশেই মুসলিম মহিলাদের হিজাব এবং অন্যান্য পোশাকের কদর বাড়ছে। এর বাণিজ্যিক সম্ভাবনা দেখে অনেক নামকরা ব্রান্ড এখন মুসলিম মহিলাদের পোশাক বাজারজাত করছে।
মার্কস এন্ড স্পেন্সারের ‘বুরকিনি’ সেরকমই একটা পোশাক। শুধু মুখ ছাড়া পুরো শরীর ঢেকে রাখা এই বডি স্যুট পরে মুসলিম মহিলারা সাঁতারে যেতে পারবেন।
‘বুরকা’ আর ‘বিকিনি’র সমন্বয়ে ফ্যাশন সমালোচকরা এই পোশাকটির নাম দিয়েছেন ‘বুরকিনি’।
সোশ্যাল মিডিয়ায় ফরাসী মহিলা অধিকার মন্ত্রী এখন তীব্র সমালোচনার মুখে রয়েছেন।
তাঁর মন্তব্যকে বর্ণবাদী এবং ইসলাম বিদ্বেষী হিসেবে বর্ণনা করে অনেকেই তার পদত্যাগ দাবি করছেন।
রেমোনা আলী নামে এক মুসলিম কলামিষ্ট লন্ডনের গার্ডিয়ান পত্রিকায় লিখেছেন, “একজন মহিলার শরীরের ওপর পূর্ণাঙ্গ অধিকার শুধু তারই। আমার যদি মার্কস এন্ড স্পেন্সার থেকে বুরকিনি কিনতে ইচ্ছে হয়, আমি তাই কিনবো। কেউ যদি বিকিনি কিনতে চায়, সেটাও মার্কস এন্ড স্পেন্সারে পাওয়া কিনতে পাওয়া যায়। বুরকিনির সমালোচকরা স্বাধীনতার কথা বলছেন। কিন্তু তারা কি এটা বুঝতে পারেন না যে এই বুরকিনি পছন্দ করার অধিকারে হস্তক্ষেপ করে তারা আসলে সেই স্বাধীনতাই কেড়ে নিচ্ছেন?” সূত্র : বিবিসি বাংলা।


মন্তব্য