kalerkantho


খ্রিষ্টানদের লক্ষ্য করে লাহোরে হামলা : তালেবান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ মার্চ, ২০১৬ ১৪:৫৩



খ্রিষ্টানদের লক্ষ্য করে লাহোরে হামলা : তালেবান

পাকিস্তানের লাহোরের একটি পার্কে খ্রিষ্টানদের লক্ষ্য করে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানো হয়েছে বলে স্বীকার করেছে তালেবান। গতকাল রবিবার আত্মঘাতী এ বোমা বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২। নিহতদের অর্ধেকই হলো শিশু। খ্রিষ্টানদের ইস্টার সানডে উৎসব উদযাপনের সময় নগরীর ভিড়ে ঠাসা গুলশান-ই-ইকবাল পার্কে শিশুদের খেলার স্থানের কাছে ওই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এতে তিন শতাধিক লোক আহতও হয়েছে। তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান (টিটিপি) ভেঙে গঠিত হওয়া কট্টরপন্থী জামাত-উল-আহরারের মুখপাত্র ইহানসুল্লাহ ইহসান অজ্ঞাত স্থান থেকে টেলিফোনে বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, লাহোরে হামলা আমরাই করেছি। খ্রিষ্টানরাই ছিল আমাদের টার্গেট।
 
তিনি বলেন, তাদের গ্রুপ আরো হামলা চালাবে। তিনি সরকারি ও সামরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট স্থাপনার পাশাপাশি স্কুল ও কলেজগুলোকে টার্গেট করার অঙ্গীকার করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিস্ফোরণের পর শিশুরা চিৎকার করে কাঁদছিল। লোকজন আহতদের নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করছিল। অনেকে তাদের প্রিয়জনদের খুঁজছিল। উদ্ধারকর্মীদের মুখপাত্র দীবা শাহবাজ বলেন, সোমবার প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে ৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। তাদের মধ্যে ২৯ জনই শিশু। ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা হায়দার আশরাফ প্রাণহানির সংখ্যা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতদের বেশির ভাগই মুসলিম।
 
লাহোরের শীর্ষ প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ উসমান বলেন, বিস্ফোরণে ২৩৩ জন আহত হয়েছে। তবে রবিবার উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা আহতের সংখ্যা তিন শতাধিক বলে উল্লেখ করেছিলেন। কমিশনার আব্দুল্লাহ সামবাল বলেন, স্কুল ও অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। তবে পাঞ্জাব প্রদেশে তিন দিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে। লাহোর হলো পাঞ্জাবের রাজধানী। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ নিরপরাধ লোকজনের প্রাণহানিতে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর প্রধান জেনারেল রাহিল শরিফ দায়ীদের বিচারের আওতায় আনার অঙ্গীকার করেন। যুক্তরাষ্ট্র এ ঘটনাকে 'কাপুরুষোচিত' বলে উল্লেখ করেছে। পাকিস্তানের নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী মালালা ইউসুফজাই এক টুইটার বার্তায় বলেন, পাকিস্তান ও বিশ্বকে এক হতে হবে। প্রতিটা জীবন গুরুত্বপূর্ণ এবং অবশ্যই তাদের জীবনের প্রতি সম্মান প্রদর্শন ও রক্ষা করতে হবে। ভ্যাটিকান এ হামলার নিন্দা জানিয়ে বলেছে, এটা খ্রিষ্টান সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে উন্মত্ত সহিংসতা। জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি-মুন ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের রক্ষা করতে ইসলামাবাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
 


মন্তব্য