kalerkantho


ইন্টারনেটই তরুণীকে পৌঁছে দিচ্ছে তাঁর স্বপ্নের দেশে!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ২৩:৩৬



ইন্টারনেটই তরুণীকে পৌঁছে দিচ্ছে তাঁর স্বপ্নের দেশে!

চীনে বেড়াতে যাওয়ার স্বপ্ন ছিল মেয়েটির৷ কিন্তু সামর্থ ছিল না৷ দুধের সাধ ঘোলে মেটাতে ফটোশপকেই হাতিয়ার করেছিলেন৷ চীনের প্রাচীরের সামনে নিজের ছবি সেঁটে দিয়েছিলেন৷ কিন্তু কে জানত, এই খামখেয়ালিপনাই তাঁকে একদিন এনে দেবে চীনে যাওয়ার সুযোগ! ফটোশপের ছবির কারণে যে নেটদুনিয়ায় মজার খোরাক হয়েছিলেন তিনি, সেই ইন্টারনেটই তাঁকে শেষমেশ পৌঁছে দিচ্ছে তাঁর স্বপ্নের দেশে৷

কেনিয়ার বাসিন্দা সিভলিন গ্যাট৷ সারা দুনিয়া ঘুরে বেড়ানোর স্বপ্ন তাঁর৷ কিন্তু স্বপ্ন সত্যি করার মতো রসদ ছিল না৷ হাতে ছিল ফটোশপ৷ সঙ্গী পেলেন কিছু সহকর্মীকে৷ তাঁরাই সিভের স্বপ্নপূরণ করতেন৷ চীনের প্রাচীর থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পাশে দাঁড়ানো কিংবা ঐশ্বর্য রাইয়ের সঙ্গে তাজমহলের প্রেক্ষাপটে ছবি তোলা-সব সাধই পূরণ করেছিল ফটোশপ৷ সে ছবি ইন্টারনেটে প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চলেছিল তুমুল হাসিমজা৷ সে সব অবশ্য গায়ে মাখেননি সিভ৷

যে ইন্টারনেট তাঁক মজার খোরাক বানিয়েছিল, সেই ইন্টারেনটই তাঁর স্বপ্নপূরণের ব্যবস্থা করে দিল৷ তাঁর এই স্বপ্নের কথা জানতে পেরে কেনিয়ার এক ব্যবসায়ী তাঁকে চিনে বেড়াতে নিয়ে যাচ্ছেন৷ সাম ঘিচারু নামে ওই ব্যবসায়ী জানিয়েছেন, তিনি নিজে স্বপ্ন দেখতে ভালবাসেন৷ আর তাই সিভের স্বপ্ন তাঁকে নাড়া দিয়েছে৷ সিভের বাবা কৃষক৷ তাই তাঁর সামর্থ নেই৷ কিন্তু মিঃ ঘিচারুর আছে৷ আর তাই একজন স্বপ্নদেখা মানুষ হিসেবে আর এক স্বপ্নদেখা মানুষকে তিনি স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে চাইছেন৷

নেটদুনিয়ার হাসিমজা আখেরে শাপে বর হল সিভলিনের কাছে৷ স্বপ্নের চীনে বেড়াতে যাওয়ার জন্য এখন পাসপোর্ট তৈরিতে ব্যস্ত তিনি৷

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন


মন্তব্য