kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


'ব্রাসেল হামলাকারীদের চিনতো না আবদেস্লাম'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ২১:১৯



'ব্রাসেল হামলাকারীদের চিনতো না আবদেস্লাম'

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে সন্ত্রাসবাদীদের বোমা হামলার পর চারদিন পেরিয়ে গেছে, কিন্তু আজ দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাসেলস বিমানবন্দর থেকে আগামী মঙ্গলবারের আগে কোন যাত্রীবাহী বিমান উড়বে না।

গত মঙ্গলবার বিমানবন্দর এবং একটি পাতাল রেল স্টেশনে ঐ হামলায় নিহত হয় ৩১ জন।

বেলজিয়ামের কর্তৃপক্ষ এই সন্ত্রাসবাদী হামলা ঠেকাতে যথেষ্ট ব্যবস্থা নিয়েছিল কিনা, তা নিয়ে সেখানে এখনো অনেক প্রশ্ন উঠছে।

ফরাসী সংবাদপত্র লা মঁদ পত্রিকা বলছে, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের মুখে প্যারিস হামলার অন্যতম সন্দেহভাজন সালাহ আবদেস স্লাম নাকি ব্রাসেলস আত্মঘাতী হামলাকারীদের চিনতো না বলে জানিয়েছে।

লা মঁদে প্যারিস হামলায় সন্দেহভাজন সালাহ আবেদস্লামকে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের ফাঁস হয়ে যাওয়া বিবরণ প্রকাশের দাবি করছে পত্রিকাটি।

সংবাদপত্রটি বলছে, ব্রাসেলস বিমানবন্দরে আত্মঘাতী হামলাকারীদের ছবি তাকে দেখানো হয়েছে। কিন্তু সালাহ আবদেস্লাম তাদের চেনার কথা অস্বীকার করেছেন।

পত্রিকাটি এও বলছে, এরচে বেশি কিছু বলার জন্যে পুলিশ তাকে জোরও করেনি। বেলজিয়ামের বিচার মন্ত্রী বলেছেন, মঙ্গলবারের হামলার পর থেকে সালাহ আবদেস্লাম আর কোনো কথা বলতে চাইছেন না। এদিকে, হামলার পর পাতাল রেলের অধিকাংশ স্টেশন খুলে দেওয়া হয়েছে। বাস চলছে স্বাভাবিক নিয়মে। কিন্তু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এখনও বন্ধ।

কর্তৃপক্ষ বলছে, আগামী মঙ্গলবারের আগে এয়ারপোর্ট খুলছে না। টার্মিনাল ভবনের কাঠামোগত নিরাপত্তা পরীক্ষা করে দেখছেন প্রকৌশলীরা।

হামলার পর এই প্রথম একদল প্রকৌশলীকে বিমানবন্দরের ভেতরে যেতে দেওয়া হলো।

কর্তৃপক্ষ বলছে, এর পাশাপাশি বিমানবন্দরের নিরাপত্তাও বাড়ানো হচ্ছে। ব্রাসেলস থেকে বিবিসির সংবাদদাতা বলছেন, শহরের রাস্তায় এখনও সৈন্যরা টহল দিচ্ছে।

হামলাকারী নেটওয়ার্কে খোঁজে পুলিশ তাদের অভিযান এখনও অব্যাহত রেখেছে। বিশেষ করে খুঁজছে বিমানবন্দরে সিসিটিভিতে ধরা পড়া তৃতীয় ব্যক্তিটিকে যিনি মেট্রোর ওপর হামলা চালাতে সাহায্য করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত মঙ্গলবার প্রথমে জাভেনতেম বিমানবন্দর এবং তার এক ঘণ্টা পরে একটি মেট্রো স্টেশনের ওপর বোমা হামলা চালানো হয় যাতে ৩১জন নিহত নিহত হয়েছে।

তথাকথিত ইসলামিক স্টেট এই হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেছে। বিবিসি

 


মন্তব্য