kalerkantho

শুক্রবার । ২০ জানুয়ারি ২০১৭ । ৭ মাঘ ১৪২৩। ২১ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বেলজিয়ামে এক সন্দেহভাজনকে গুলি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৮:৩০



বেলজিয়ামে এক সন্দেহভাজনকে গুলি

ইউরোপ জুড়ে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান জোরদারের অংশ হিসেবে বেলজিয়ামে এক সন্দেহভাজনকে গুলি করেছে পুলিশ । গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজনকে আটক করা হয়েছে। প্যারিস ও ব্রাসেলসকে টার্গেট করা একটি জিহাদি নেটওয়ার্ক ‘ধ্বংস’ করা হচ্ছে-ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের এমন ঘোষণার প্রেক্ষাপটে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।
এএফপি জানায়, গত মঙ্গলবার ব্রাসেলসে হামলার ঘটনায় ৩১ জন নিহত এবং ৩০০ জন আহত হয়। হতাহতদের স্মরণ করছে বেলজিয়ামবাসী। প্রাণহানির ঘটনায় দুঃখ ভারাক্রান্ত নাগরিকরা বেলজিয়ামের কেন্দ্রস্থলের একটি স্কয়ারে বৃষ্টির মধ্যে দাঁড়িয়ে প্রার্থনা করেছেন। তারা পুষ্পমাল্য অর্পণ করে নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাও নিবেদন করেন। তবে একই সঙ্গে তারা ক্ষুব্ধও হচ্ছেন। তাদের অভিযোগ, সরকারের ব্যর্থতার কারণে সন্ত্রাসীরা নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে।
বেলজিয়ামের গোয়েন্দাদের ব্রাসেলস বিমানবন্দর ও পাতাল রেলে বোমা বিস্ফোরণ, গত নভেম্বরে প্যারিসে হামলা ও ফ্রান্সে নতুন করে হামলার পরিকল্পনার সঙ্গে সম্পর্কিত একটি ইউরোপীয় জিহাদি সেলের উদ্বেগজনক তথ্য প্রমাণ প্রকাশ করার প্রেক্ষাপটে ইউরোপজুড়ে অভিযান চলছে।
ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ বলেন, ‘প্যারিস ও ব্রাসেলস নগরীতে হামলার পরিকল্পনাকারী একটি চক্রকে ধ্বংস করা হচ্ছে। তবে এটি এখনও বিরাট হুমকি। ’
ব্রাসেলস বিমানবন্দরে আত্মঘাতী হামলাকারী ইবরাহিম আল বকরাউই তুরস্কে গ্রেফতার হয়েছিল। এরপর তাকে বেলজিয়ামে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছিল এবং বেলজিয়াম কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছিল, সে একজন বিদেশী সন্ত্রাসী যোদ্ধা। তবে বেলজিয়াম তুরস্কের এ সতর্কবাণী উপেক্ষা করেছে। তুরস্ক এ তথ্য প্রকাশের পর বেলজিয়াম সরকার তাদের ‘ভুল’ এবং দুই মন্ত্রীকে পদত্যাগের প্রস্তাব দেয়ার কথা স্বীকার করেছে।
ব্রাসেলস হামলায় জড়িত সন্ত্রাসীদের পাকড়াও করতে সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে বেলজিয়ামের পুলিশ। অভিযান চলছে প্রতিবেশী ফ্রান্স আর জার্মানিতেও। বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত বেলজিয়াম, ফ্রান্স ও জার্মানি থেকে মোট ১০ জনকে আটক করা হয়েছে। ফ্রান্স বলেছে, ব্রাসেলস হামলাকারীদের সঙ্গে যোগসাজশ থাকা একটি চক্র ফ্রান্সে আবার বড় ধরনের হামলার ছক কষেছিল। অনেক দূর এগিয়ে যাওয়া সেই ছক ভেস্তে দেয়া হয়েছে।
গত মঙ্গলবার ব্রাসেলস বিমানবন্দর ও পাতাল রেলে সন্ত্রাসী হামলায় ৩১ জন নিহত হয়। এ ঘটনায় পুরো ইউরোপে এবং এর বাইরেও বিভিন্ন দেশে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।


মন্তব্য