kalerkantho

26th march banner

বেলজিয়ামে ব্যাপক তল্লাশি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ২১:৫৫



বেলজিয়ামে ব্যাপক তল্লাশি

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর বুধবার দেশটিতে ব্যাপক তল্লাশী অভিযান চালানো হচ্ছে। ব্রাসেলসের ব্যস্ততম জাভেনতেম বিমানবন্দর ও একটি মেট্রো স্টেশনে (পাতালরেল) মঙ্গলবার সন্ত্রাসী হামলায় প্রায় ৩৫ জন নিহত ও দুই শতাধিক আহত হয়।
হামলার ঘটনার পর বেলজিয়ামে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়। ইউরোপজুড়ে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তাব্যবস্থা। হামলার দায় স্বীকার করে অনলাইনে বিবৃতি দিয়েছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)।
বেলজিয়াম কর্তৃপক্ষ সন্দেহভাজন দুই হামলাকারীর ছবি প্রকাশ করেছে। হামলাকারীরা টার্মিনাল দিয়ে ট্রলিতে করে বোমা নিয়ে আসে। কর্তৃপক্ষ বলেছে, বিমানবন্দরে হামলায় তিন জঙ্গি অংশ নেয়। তাদের মধ্যে দুজন আত্মঘাতী হামলা চালায়। তৃতীয় হামলাকারীর কাছে থাকা বোমা বিস্ফোরিত হয়নি। তাকে ধরতে সক্রিয় অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।
হামলার পর রাতে পুলিশের হেলিকপ্টার আকাশ চক্কর দিয়েছে এবং বেলজিয়ামজুড়ে পাতাল পথগুলোতে হানা দিচ্ছে পুলিশ। দেশটির সরকারি কৌঁসুলিরা জানান, অভিযান চলাকালে একটি ফ্ল্যাটে একটি বোমা, আইএসের একটি পতাকা ও রাসায়নিক পদার্থ পাওয়া গেছে।
গত বছরের ১৩ নভেম্বর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে আইএসের হামলায় ১৩০ জন নিহত হয় । ওই হামলার অন্যতম সন্দেহভাজন সালাহ আবদেসালামকে ব্রাসেলস থেকে আটক করা হয় ১৮ মার্চ। তাকে গ্রেপ্তারের পর থেকে সতর্ক অবস্থায় ছিল বেলজিয়ামের কর্তৃপক্ষ। কিন্তু আবদেসালাম গ্রেপ্তারের চার দিনের মাথায় সন্ত্রাসী হামলায় রক্তাক্ত হলো ব্রাসেলস। এতে সন্ত্রাসবাদ দমনে এ অঞ্চলের সক্ষমতা নিয়ে নতুন করে প্রশ্ন উঠেছে।
হামলার ঘটনায় আজ থেকে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করছে বেলজিয়াম। হামলার প্রতিবাদ এবং হতাহত ব্যক্তিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ব্রাসেলসবাসী প্লেস দ্য লা বুর্স স্কয়ারে মোমবাতি জ্বেলেছেন। এছাড়া হাজার হাজার লোক সামাজিক গণমাধ্যমে বেলজিয়ামের কার্টুন চরিত্র টিনটিনের অশ্রুসিক্ত ছবি শেয়ার করেছেন।
দেশটির প্রধানমন্ত্রী চার্লস মিশেল এই হামলাকে ‘অন্ধ, হিংসাত্মক ও কাপুরুষোচিত’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘এটা বেদনার দিন, এটা একটা কালো দিন। ’
বেলজিয়ামের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জান জামবোন হামলার ঘটনার পর দেশে সন্ত্রাসী হামলার সতর্কতা সর্বোচ্চ মান চারে উন্নীত করার ঘোষণা দেন। লোকজন যে যেখানে আছে, সেখানেই অবস্থান নিতে বলা হয়। এ ছাড়া দেশটির সব পারমাণবিক স্থাপনায় নিরাপত্তা বাড়ানো হয়।
হামলার ঘটনার পর ইউরোপজুড়ে বিভিন্ন রাজধানীতে সতর্ক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা।


মন্তব্য