kalerkantho


ব্রাসেলসে বোমা হামলার কথা আগেই জানতেন এর্দোগান!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ মার্চ, ২০১৬ ২১:৪৮



ব্রাসেলসে বোমা হামলার কথা আগেই জানতেন এর্দোগান!

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এর্দোগান ব্রাসেলসে ভয়াবহ বোমা হামলার কথা আগেই জানতেন কিনা সে বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় চলতি মাসের ১৩ তারিখে ভয়াবহ গাড়িবোমা হামলায় জন ১৩ নিহত এবং ৩৭ জন আহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এর্দোগানের দেয়া বিবৃতির জের ধরে এ প্রশ্ন তোলা হয়েছে। ওই বিবৃতিতে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে বোমা হামলা হতে পারে আশংকা ব্যক্ত করেছিলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

শুক্রবার এক ভাষণে তিনি বলেছিলেন, আঙ্কারায় যেমন বোমা হামলা হয়েছে তেমন বোমা হামলা ব্রাসেলস বা ইউরোপের অন্যান্য নগরীতে না হওয়ার কোনো কারণই নেই। তুরস্কের উপকূলীয় শহর কানাকালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার লড়াইয়ের স্মরণে আয়োজিত অনুষ্ঠান এ কথা বলেন এর্দোগান।

তার এ বক্তব্য দেয়ার মাত্র পাঁচ দিনের মাথায় মঙ্গলবার ব্রাসেলসে বিমানবন্দর এবং মেট্রো স্টেশনে আলাদা বোমা হামলায় অন্তত ৩৪ জন নিহত এবং প্রায় দুইশ’ জন আহত হয়।

এরইমধ্যে এর্দোগানের দেয়া বক্তব্যকে ২০০৫ সালে হোয়াইট হাউজের সংবাদ সম্মেলনে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডাব্লিউ বুশের কথিত ভুলের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হচ্ছে। আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন-লাদেনের নাম বলতে গিয়ে বুশ  ভুলে ইরাকের প্রেসিডেন্ট সাদ্দামের নাম নিয়েছিলেন।

এ ছাড়া, ব্রাসেলস এবং আঙ্কারার হামলার গতি-প্রকৃতি আলাদা এবং এদের মধ্যে কোনো মিলই নেই। আঙ্কারায় হামলার দায় স্বীকার করেছে, কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পাটি বা পিকেকে'র সঙ্গে যুক্ত একটি জঙ্গি গোষ্ঠী। অন্যদিকে ব্রাসেলসে হামলার দায় স্বীকার করেছে, তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ।

ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভবনের কাছে পিকেকে’কে তাঁবু গড়তে দেয়ায় ক্ষুদ্ধ এর্দোগান ইউরোপের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছিলেন। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো, তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে মদদ দানকারীদের মধ্যে শীর্ষে যে সব দেশ রয়েছে তার অন্যতম হলো তুরস্ক। এ ছাড়া, দায়েশের সঙ্গে অবৈধ তেল বাণিজ্যে তুরস্ক জড়িত বলে বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগ বহুবারই করা হয়েছে। রেডিও তেহরান


মন্তব্য