kalerkantho


ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের চিফ অব স্টাফ হচ্ছেন লুলা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ মার্চ, ২০১৬ ১৩:৪০



ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের চিফ অব স্টাফ হচ্ছেন লুলা

মাথার ওপর অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ নিয়েই ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট দিলমা রৌসেফের চিফ অব স্টাফ হচ্ছেন দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা ডা সিলভা। আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অপারেশন কার ওয়াশ নামে লুলার বিরুদ্ধে ব্যাপক অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় যে তদন্ত পরিচালনা করছিলেন ব্রাজিলের ফেডারেল বিচারক, তাতে রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করবে তার এ নতুন পদ।

প্রেসিডেন্ট রৌসেফ অবশ্য এ ব্যাপারে একমত হতে নারাজ। তিনি বলেছেন, আমার সরকারকে শক্তিশালী করতেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যারা সরকারের শক্তিবৃদ্ধির বিপক্ষে, তারাই এ ধরনের কথা বলছেন।

ব্রাজিলের আইন অনুযায়ী, কেবিনেট সদস্যদের বিচারের এখতিয়ার শুধু দেশটির সর্বোচ্চ আদালতের। অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে অপারেশন কার ওয়াশ-এর আওতায় দুই সপ্তাহ আগে লুলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আর গত সপ্তাহে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন সাও পাওলোর প্রসিকিউটররা। অভিযোগ গঠনের পরদিন, ১০ মার্চ এক সংবাদসম্মেলন করে লুলার গ্রেপ্তারও চান তারা। লুলার বিরুদ্ধে অভিযোগে বলা হয়, ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় নির্মাণ প্রতিষ্ঠান ওএএস সমুদ্র তীরবর্তী তার বিলাসবহুল পেন্ট হাউজটিতে ব্যাপক সংস্কারের কাজ করেছে। দাপ্তরিকভাবে পেন্ট হাউজটির মালিকানার দালিলিক প্রমাণ দেখাতে ব্যর্থ হয়েছেন লুলা।

প্রসঙ্গত, ব্রাজিলের পের্নামবুকো অঙ্গরাজ্যে ১৯৪৫ সালের ২৭ অক্টোবর এক দরিদ্র, অশিক্ষিত পরিবারে জন্ম নেন লুলা। জীবনের প্রথম দিকে তিনি সাও পাওলোয় একটি গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। স্বৈরশাসনবিরোধী আন্দোলনের সময় তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে দেশব্যাপী পরিচিতি পান। ১৯৮০ সালে ব্রাজিলের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সমাজতান্ত্রিক দল ওয়ার্কার্স পার্টি (পিটি) গঠন করেন লুলা। চারবার চেষ্টার পর ২০০২ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন এবং দুই মেয়াদে এ দায়িত্ব পালন করেন।

ক্ষমতায় থাকাকালে তিনি সামাজিক বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের জন্য হাজার কোটি ডলার আয় করেন এবং এর মাধ্যমে লাখ লাখ ব্রাজিলিয়ানের জীবন বদলে দেন। ২০১০ সালে নিজের হাতে গড়া রাজনীতিক দিলমা রৌসেফকে উত্তরসূরী মনোনয়ন দিয়ে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ান তিনি এবং ঘোষণা দেন, সড়কে জীবনধারণের জন্য আমি সরকার থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি। যেখানকার মানুষ আমি, সেখানেই ফিরে যাচ্ছি। আগে আমি যতটা মানুষের ছিলাম, এখন তার চেয়েও বেশি হবো। ২০১৮ সালের আগ পর্যন্ত আমি অবসর নিলাম।

 


মন্তব্য