kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ধর্ষণের পর গর্ভনিরোধক ওষুধ প্রয়োগ করতো আইএস!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০১:১১



ধর্ষণের পর গর্ভনিরোধক ওষুধ প্রয়োগ করতো আইএস!

আইএস নৃশংসতার আরও এক নজির। যৌনদাসীর জোগান বাড়াতে এবার নারীদের গর্ভনিরোধক ওষুধ ব্যবহার করা শুরু করেছে আইএস।

জঙ্গি সংগঠনটির ডেরায় আটক নারীরা ধর্ষণের পর যাতে অন্তঃসত্ত্বা না হয়ে পড়েন, তার জন্য নানা রকম গর্ভনিরোধক ওষুধ প্রয়োগ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আইএস জঙ্গিদের ডেরা থেকে পালানো ইয়েজিদি নারীরা।

আইএস ডেরা থেকে পালিয়ে বাঁচা নারীরা জানিয়েছেন, তাঁদের প্রত্যেককে একটি করে ঘরে রাখা হত। ওই ঘরে ফার্নিচার বলতে শুধু একটি খাট। সূর্য ডুবলেই একের পর জঙ্গি তাঁদের ধর্ষণ শুরু করত। রাতভর এই অত্যাচার চলত। এর জেরে বহু নারীই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ত। সেই নারীদের আর যৌনদাসী হিসেবে ব্যবহার করা যেত না। তাই জোর করে তাঁদের গর্ভপাত করানো হত।

আইএস ডেরা থেকে পালানো ১২ বছরের এক কিশোরীর কথায়, 'প্রতিদিন আমায় একটি ছোট গোল বাক্স দেওয়া হত। সেই বাক্সে লাল রঙের একটি ট্যাবলেট ভর্তি থাকত। দু'টো করে ট্যাবলেট খেয়ে নিতে হত। না খেলেই চলত মারধর। কাউকে আবার ইঞ্জেকশনও দেওয়া হত। প্রায় একমাস পরে জানতে পেরেছিলাম ওটা গর্ভনিরোধক ওষুধ। '

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন সূত্রের খবর, গত বছর পর্যন্ত ৫ হাজার ইয়েজিদি পুরুষ ও নারীকে অপহরণ করেছে আইএস। তাঁদের মধ্যে ২ হাজার জন পালাতে পেরেছে। কয়েকশ' নারীকে আইএস-এর স্বঘোষিত ইসলামিক স্টেটে পাচারও করে দিয়েছে জঙ্গিরা। আইএস-এর হাতে থাকা বেশির ভাগ কিশোরীরই বয়স ১২ থেকে ১৪-র মধ্যে।

সূত্র: এই সময়


মন্তব্য