ট্রাম্প আসলে হিটলার!-334352 | বিদেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১০ আশ্বিন ১৪২৩ । ২২ জিলহজ ১৪৩৭


ট্রাম্প আসলে হিটলার!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ মার্চ, ২০১৬ ১৪:০৫



ট্রাম্প আসলে হিটলার!

যুক্তরাষ্ট্রে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলে প্রার্থিতার দৌড়ে বেশ মজবুত অবস্থানে আছেন ধনাঢ্য ব্যবসায়ী ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমনকি অনেকে এরই মধ্যে তাকে রিপাবলিকান প্রার্থী হিসেবেও দেখতে শুরু করেছেন। আবার অনেকেই নানা মন্তব্য ও কট্টর অবস্থানের জন্য সমালোচিত এই নেতাকে দ্বিতীয় হিটলার হিসেবেই দেখছেন। যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন নীতির সংস্কারের দাবি জানিয়ে প্রথম সমালোচিত হন ট্রাম্প। এরপর গত নভেম্বরে ক্যালিফর্নিয়ায় মুসলিম দম্পতির নির্বিচারে গুলির ঘটনায় মুসলিমবিদ্বেষী মন্তব্য করেন তিনি। এতে তার সমালোচনা নতুন মাত্রা পায়। বিশ্বনেতারাও জড়িয়ে পড়েন এতে। এসবের সঙ্গে মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী প্রবেশ করছে মন্তব্য করে দেশটির সঙ্গে সীমানাপ্রাচীর নির্মাণের দাবি তুলে তিনি নতুন করে সমালোচিত হন। এবার স্বয়ং পোপ তার ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। সবকিছু মিলিয়ে প্রার্থিতার দৌড়ে একের পর এক উতরে গেলেও সমালোচনা তার পিছু ছাড়ছে না।

মেক্সিকোর বর্তমান ও সাবেক তিন শীর্ষস্থানীয় নেতা তো ট্রাম্পকে এরই মধ্যে হিটলার খেতাব দিয়ে বসেছেন। আর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এমনভাবে তার প্রশংসা করেছেন যে, তা প্রশংসা কম নিন্দাই বেশি বলে মনে হয়েছে। তবে ইউরোপের ডানপন্থী রাজনীতিকরা ট্রাম্পের আন্তরিক প্রশংসাতেই মেতেছেন। ওয়াশিংটনের ইতিহাসবিদ জেমস থারবার এ ব্যাপারে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থিতার দৌড়ে রয়েছেন, এমন কোনো মার্কিন নেতার ব্যাপারে বিশ্বনেতাদের এমন মন্তব্য নজিরবিহীন। সিরিয়া সংকট, মুসলিমবিদ্বেষী মনোভাব, স্প্যানিসভাষী দেশগুলোর সমালোচনা, যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন নীতি ও বাণিজ্যনীতি নিয়ে উদ্ভট সব মন্তব্য ও সংস্কার প্রস্তাব করে তিনি এমন সমালোচনা কুড়াচ্ছেন। সত্যিকার অর্থেই তিনি জনবিচ্ছিন্ন।

মেক্সিকান প্রেসিডেন্ট এনরিক পেনা নিয়েতো বলেছেন, ট্রাম্পের মন্তব্য শুনলে মনে হয় বেনিতো মুসোলিনি আর হিটলার কথা বলছেন। শুধু মেক্সিকোই নয়, যুক্তরাষ্ট্রের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত কানাডা, আয়ারল্যান্ড, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, তুরস্ক, ইসরায়েল ও সৌদি আরবেও ট্রাম্পের ব্যাপারে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। গত ফেব্রুয়ারিতে কানাডীয় জনমত জরিপ প্রতিষ্ঠান লিগার পরিচালিত দেশটিতে এক জরিপে দেখা গেছে, সেখানকার ৬৫ শতাংশ মানুষ ট্রাম্পের ব্যাপারে শঙ্কিত। তাদের মতে, তিনি যদি প্রেসিডেন্ট পদের জন্য মনোনয়ন পান ও কোনোভাবে নভেম্বরের দ্বৈরথে উতরে যান, তাহলে বিশ্ব এক বিভিষিকা দেখতে চলেছে।

মার্কিন ইতিহাসবিদ জেফ্রি টুলিস বলেছেন, ১৯৮০ সালে রোনাল্ড রিগ্যানও সমালোচিত হয়েছিলেন, যখন তিনি প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টারের বিরুদ্ধে নির্বাচনী দ্বৈরথে নেমেছিলেন। কিন্তু সে সমালোচনা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সমালোচনার তুলনায় কিছুই না।

 

মন্তব্য