kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন

ই-মেল দেখিনি, জানতাম না ওষুধটা নিষিদ্ধ হয়ে গিয়েছে

কলঙ্কের নির্বাসনের মুখে টেনিস সুন্দরী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ মার্চ, ২০১৬ ০২:৪৬



ই-মেল দেখিনি, জানতাম না ওষুধটা নিষিদ্ধ হয়ে গিয়েছে

টেনিস সুন্দরী কলঙ্কিত!
কোনও মিডিয়ার শিরোনাম— চ্যাম্পিয়ন টু চিট!
জন ম্যাকেনরো এক বার বলেছিলেন, অন্য সব খেলার চেয়ে টেনিসে ডোপ পরীক্ষার চল বেশি বলে খেলাটা এত বিশুদ্ধ।
অনেকটাই তাই।

মার্টিনা হিঙ্গিস বাদে তেমন কোনও সুপারস্টারের ডোপিং কেলেঙ্কারিতে জড়ানোর নজির মঙ্গলবার ভোররাত পর্যন্ত ছিল কই? টেনিস ট্যুরে পরিচিত নাম বলতে মারিন চিলিচ, রিচার্ড গাস্কে আর ভিক্টর ট্রইকির মতো দু’-তিন জন, যাঁরা ডোপিং-উত্তর নির্বাসন কাটিয়ে আবার সার্কিটে ফিরেও এসেছেন। আর সানিয়া মির্জার বিখ্যাত ডাবলস পার্টনার তো ডোপিংয়ের পর অবসর নিয়েও সেটা ভেঙে কোর্টে ফিরে আবার এক নম্বর বর্তমানে। মহাতারকা বলতে আন্দ্রে আগাসি— তবে সেটা তো অবসরের বহু বছর পর আত্মজীবনীতে এক বার ডোপিংয়ের কথা স্বীকার করেন তিনি!
কিন্তু মারিয়া শারাপোভা যেন গোটা টেনিসদুনিয়াকে এক স্বীকারোক্তিতে নড়িয়ে দিয়েছেন!
লস অ্যাঞ্জেলিসে স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধেয় রুশ টেনিস সুন্দরী সাংবাদিক সম্মেলন ডাকায় মিডিয়ার সিংহভাগের ধারণা ছিল, টানা চোটআঘাতের ধাক্কায় আঠাশেই হয়তো অকাল অবসরের ঘোষণা করতে চলেছেন তিনি। কিন্তু বিশাল হলে সম্পূর্ণ কালো আউটফিট-এ শারাপোভা যখন লিখিত বিবৃতি কাঁপা গলায় পড়ছেন, উপস্থিত মিডিয়া যেন বিদ্যুৎপৃষ্ঠ! টেনিস গ্ল্যামার, টেনিস রোম্যান্টিসিজমের মাথায় বাজ পড়ার উপক্রম তখন। শারাপোভার স্বীকারোক্তির পর বাজ পড়েছে তাঁর স্পনসরদের মাথায়ও। এরই মধ্যে তিনটে বিখ্যাত বহুজাতিক সংস্থা সরে দাঁড়িয়েছে শারাপোভার পাশ থেকে। যার জেরে বলা হচ্ছে, দশ কোটি ডলারের উপর ক্ষতি হয়ে গিয়েছে টেনিসের গ্ল্যামার গার্লের।

 


মন্তব্য