তুরস্কের জামান পত্রিকায় পুলিশের-332890 | বিদেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


তুরস্কের জামান পত্রিকায় পুলিশের অভিযান, প্রকাশ হলো শেষ সংস্করণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ২১:২৮



তুরস্কের জামান পত্রিকায় পুলিশের অভিযান, প্রকাশ হলো শেষ সংস্করণ

সরকারের নিয়ন্ত্রণ ও পুলিশি অভিযানের আগেই গত শুক্রবার রাতে প্রকাশিত হয়েছে তুরস্কের জনপ্রিয় জামান পত্রিকার শেষ সংস্করণ। সেখানে রাষ্ট্রীয় কর্তপক্ষের পত্রিকার নিয়ন্ত্রণ নেয়ার কড়া প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়েছে। দিনটিকে তুরস্কের গণমাধ্যমের ইতিহাসে অন্যতম ‘কালো দিন’ বলা হয়েছে।
গত শুক্রবার মধ্যরাতে পত্রিকার কার্যালয়ে পুলিশি অভিযান শুরুর ঠিক আগেই জামান পত্রিকার এই সংস্করণ প্রকাশিত হয়। পত্রিকাটির ইংরেজি সংস্করণে লেখা হয়, ‘তুরস্কের মুক্ত গণমাধ্যমের জন্য দিনটি লজ্জার।’
গত শুক্রবার জামান পত্রিকাকে সরকারের নিয়ন্ত্রণে রাখার নির্দেশ দেয় আদালত। এর পর পত্রিকার কয়েক শ পাঠক-সমর্থক ইস্তাম্বুলে প্রধান কার্যালয়ের বাইরে অবস্থান নেন। মধ্যরাতের ঠিক আগে পুলিশ তাদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে ও জলকামান ব্যবহার করে। পুলিশ সেনা সদস্যদের কায়দায় এগিয়ে গিয়ে সরাসরি বিক্ষোভকারীদের গায়ে বরফ শীতল পানি ছোড়ে। এরপর লোহার ফটক কেটে বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য ভবনের ভেতরে ঢোকে।
পুলিশের এই অভিযানের পর সংবাদকর্মীরা অনেকেই কাজ শুরু করেন। তবে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে অনেকেই বার্তা দেন যে তারা ইন্টারনাল সার্ভারে ঢুকতে পারছেন না। অনেকে ইমেইলে ঢুকতে পারছেন না বলে জানান। আব্দুল্লাহ বজতুরত নামে এক প্রতিবেদক বলেন, পত্রিকার অনলাইন আর্কাইভ নষ্ট করে দেওয়ার চেষ্টা চলেছে।
জামান পত্রিকার প্রচার সংখ্যা ছিল সাড়ে ৬ লাখ ।
তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাভুতোগলু বলেন, জামানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা আইনি, রাজনৈতিক নয়।
জামান পত্রিকাটি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের কঠোর সমালোচক বলে পরিচিত। পত্রিকাটির সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ধর্মপ্রচারক ফেতুল্লাহ গুলেনের হিজমাত আন্দোলনের যোগাযোগ রয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তুরস্কে হিজমাতকে সন্ত্রাসী দল বলে মনে করা হয়। তুরস্কের সরকার মনে করে, জামান পত্রিকা প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানকে উৎখাত করতে চায়।
এদিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে আঙ্কারা সরকারের আচরণের সমালোচনা করেছে আন্তর্জাতিক বিশ্ব।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) কূটনৈতিক সার্ভিস জানায়, তুরস্ককে গণমাধ্যমের স্বাধীনতাসহ ব্যাপক গণতান্ত্রিক মানদন্ড সম্প্রসারণ ও অনুশীলন এবং এর প্রতি সম্মান দেখানো প্রয়োজন। যুক্তরাষ্ট্র পুলিশের পদক্ষেপকে ‘উদ্বেগজনক’ বলে উল্লেখ করেছে।

মন্তব্য