মৃণাল সেন, পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীকে ডি-332611 | বিদেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৪ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৬ জিলহজ ১৪৩৭


মৃণাল সেন, পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীকে ডি লিট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০৬



মৃণাল সেন, পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীকে ডি লিট

বিশিষ্ট চিত্রপরিচালক মৃণাল সেন এবং সঙ্গীতশিল্পী পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীকে সাম্মানিক ডি লিট দিল শিবপুরের ‌ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ইঞ্জিনিয়ারিং সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (আই আই ই এস টি)। সেই সঙ্গে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য বিশিষ্ট বিজ্ঞানী সুহাসচন্দ্র দত্তরায় এবং হায়দরাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়নের গবেষক অধ্যাপক গোবর্ধন মেহতাকে ডি এসসি দেওয়া হল। শুক্রবার শিবপুর আই আই ই এস টি'র দ্বিতীয় বার্ষিক সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তাঁদের হাতে সাম্মানিক ওই ডিগ্রি তুলে দেন এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চেয়ারপার্সন তথা ইসরোর প্রাক্তন চেয়ারম্যান ড.‌ কে রাধাকৃষ্ণন। শারীরিক সমস্যার কারণে এদিনের অনুষ্ঠানে চিত্রপরিচালক মৃণাল সেন আসতে পারেননি। তবে তাঁকে ডি লিট সম্মানে ভূষিত করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে আই আই ই এস টি কর্তৃপক্ষের কাছে একটি চিঠি পাঠান মৃণালবাবু। চিঠিটি অনুষ্ঠানমঞ্চে পাঠ করা হয়। এ ছাড়াও নিজেদের পেশায় সুনামের সঙ্গে কাজ করায় এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪ জন প্রাক্তনীকে এদিন বিশেষ পুরস্কার ও সম্মানে ভূষিত করা হয়। তাঁরা হলেন ত্রিপুরার রাজ্যপাল তথাগত রায়, ধ্রুবজ্যোতি ঘোষ, শ্রীমানকুমার ভট্টাচার্য এবং অজিত চক্রবর্তী। শিক্ষকতার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের কারণে এখানকার ৩ জন অধ্যাপক সুব্রত সেনগুপ্ত, সুজিতকুমার রায় এবং সুশান্তকুমার সরকারকে বিশেষ শিক্ষক পুরস্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে ভেল–এর চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর অতুল সবতি প্রধান অতিথি হিসেবে হাজির ছিলেন। আই আই ই এস টি, শিবপুরের চেয়ারপার্সন কে রাধাকৃষ্ণন ছাড়াও এখানকার অধিকর্তা ড.‌ অজয়কুমার রায়, রেজিস্ট্রার বিমান ব্যানার্জি প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এদিকে শিবপুর আই আই ই এস টি-তে সমাবর্তন চলাকালীন আচমকা সিলিং ফ্যান ভেঙে পড়ে বিপত্তি ঘটল। তবে বড় ধরনের দুর্ঘটনা না ঘটলেও স্নাতকোত্তর স্তরের ডিগ্রি নিতে আসা ৩ জন পড়ুয়া অল্প জখম হয়েছেন। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা করা হয়। কারও আঘাত গুরুতর নয়। জানা গেছে, সমাবর্তন অনুষ্ঠানের প্রায় শেষ পর্যায়ে যখন ছাত্রছাত্রীরা ডিগ্রি নিচ্ছেন, তখনই প্যান্ডেলে পড়ুয়া ও শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য বসার জায়গায় হঠাৎই একটি সিলিং ফ্যান ভেঙে পড়ে। এই ঘটনায় উপস্থিত ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অভিভাবকদের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তবে কারও মাথার ওপর ফ্যান না পড়লেও কয়েকজনের গায়ে ফ্যানটি পড়ে। ৩ জন পড়ুয়া সামান্য আহত হন। তাঁরা হলেন দেবারুণ ব্যানার্জি, অর্কদীপ দাস ও অভিজিৎ মণ্ডল। সেখানে থাকা চিকিৎসকরাই তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা করে ছেড়ে দেন। আই আই ই এস টি-র কর্ণধার ড.‌ অজয় রায় জানান, ‘‌কেন এই ঘটনা ঘটল, তা জানতে একটি তদন্ত কমিটি গড়ে দু’‌দিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলেছি।

সূত্র: আজকাল

মন্তব্য