kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নাজিব রাজাককে উৎখাতের ডাক মাহাথিরের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ মার্চ, ২০১৬ ১১:২৬



নাজিব রাজাককে উৎখাতের ডাক মাহাথিরের

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে ক্ষমতা থেকে সরাতে একজোট হয়েছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ, বিরোধী দল এবং ক্ষমতাসীন দলের কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা। তাদের মধ্যে এ-সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হয়েছে।

রাজাকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় তহবিলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ ওঠার ঘটনাকে সামনে এনে তারা তার অপসারণ দাবি করেন। এসব গ্রুপের মধ্যে হওয়া এমওইউ শুক্রবার কুয়ালালামপুরে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে পড়ে শোনান মাহাথির মোহাম্মদ।

এ সময় বরখাস্ত হওয়া ডেপুটি প্রেসিডেন্ট মুহিউদ্দিন ইয়াসিনসহ ক্ষমতাসীন দল ইউনাইটেড মালয় ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন। সমঝোতা স্মারকে যেসব আইন মানুষের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘন করে, সেগুলো বাতিল করারও আহ্বান জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী রাজাক মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বেরহাদ বা ওয়ান এমডিবি নামের রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ তহবিল থেকে প্রায় ৭০ কোটি মার্কিন ডলার ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাবে সরিয়ে নিয়েছেন বলে গত বছর অভিযোগ ওঠে। এ নিয়ে হইচই শুরু হয়। তবে রাজাকের দাবি ওই অর্থ ছিল বিদেশি দান।

এ আর্থিক কেলেঙ্কারির সমালোচনা করায় রাজাক তার উপপ্রধানমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন দলের ডেপুটি প্রেসিডেন্ট মুহিউদ্দিন ইয়াসিনকে বরখাস্ত করেন। একই সঙ্গে কেলেঙ্কারির ঘটনা তদন্তের নেতৃত্বে থাকা অ্যাটর্নি জেনারেলকেও বরখাস্ত করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বিরোধী ও ক্ষমতাসীন দলের কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় নেতার পাশাপাশি একটি প্রভাবশালী সুশীল সমাজের সংগঠনের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। এ সময় যে এমওইউ পড়ে শোনানো হয়, তাতে বলা হয়, আমরা ধর্ম-বর্ণ, রাজনৈতিক মতাদর্শ, ছেলে-বুড়ো নির্বিশেষে সব মালয়েশীয় নাগরিকের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, আপনারা আমাদের সঙ্গে শামিল হোন। নাজিব রাজাকের নেতৃত্বাধীন সরকারের হাত থেকে মালয়েশিয়াকে রক্ষার জন্য আমাদের সঙ্গে যোগ দিন।

ঐতিহাসিক এই জোট সেসব রাজনৈতিক পক্ষকেও এক ছাতার নিচে নিয়ে এসেছে, যাদের মধ্যে অতীতে তিক্ত সম্পর্ক ছিল। এই জোটের নেতৃত্বে থাকছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথিরই, যিনি রাজাকের দুর্নীতি ও অপশাসনের অভিযোগের বিরুদ্ধে আগে থেকেই সোচ্চার। এক সংবাদ সম্মেলনে মাহাথির বলেন, নানা মতপার্থক্য সত্ত্বেও এখানে সমবেত নেতাদের একটাই লক্ষ্য। সেটা হলো, প্রধানমন্ত্রী নাজিব থেকে আমাদের মুক্তি পেতে হবে।

 


মন্তব্য