জাতিসংঘের কঠোর নিষেধাজ্ঞার পর উত্তর-331789 | বিদেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


জাতিসংঘের কঠোর নিষেধাজ্ঞার পর উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ মার্চ, ২০১৬ ১৯:৩৭



জাতিসংঘের কঠোর নিষেধাজ্ঞার পর উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ

উত্তর কোরিয়া বৃহস্পতিবার স্বল্পপাল্লার ৬টি ক্ষেপণাস্ত্র সাগরে নিক্ষেপ করেছে। দেশটির চতুর্থ দফার পরমাণু পরীক্ষা ও রকেট উৎক্ষেপণের পর জাতিসংঘের কঠোর অবরোধের কয়েকঘন্টার মধ্যে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো নিক্ষেপ করা হয়।
বিশ্লেষকরা বলছেন, অবরোধের প্রতি উপেক্ষাভাব দেখানোই ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের লক্ষ্য।
দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, উত্তর কোরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় উপকূল থেকে ১শ থেকে দেড়শো কিলোমিটার দূরের সাগরে ছয়টি প্রজেক্টাইল (রকেট/ক্ষেপণাস্ত্র) নিক্ষেপ করা হয়।
জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বুধবার উত্তর কোরিয়ার ওপর কঠোর অবরোধ আরোপের প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে পাশ হওয়ার কয়েকঘন্টার মধ্যে পিয়ংইয়ং ক্ষেপণাস্ত্রগুলো নিক্ষেপ করে। এর আগে অবরোধের প্রস্তাব নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও পিয়ংইয়ংয়ের একমাত্র বৃহৎ মিত্র চীনের সঙ্গে সাত সপ্তাহ ধরে ব্যাপক আলোচনা চলে।
এদিকে অবরোধের পদক্ষেপ পুরোপুরি বাস্তবায়ন করছে কিনা তা দেখতে বিশ্বে সকলের চোখ এখন চীন ও রাশিয়ার দিকে। এছাড়া অবরোধের শর্ত অনুযায়ী সকল বিমান ও সমুদ্র বন্দর দিয়ে উত্তর কোরিয়া থেকে আসা ও যাওয়া কার্গোগুলো সবদেশকে পরীক্ষা করতে হবে। একইসঙ্গে কয়লা, লোহা, আকরিক লোহা ও অন্যান্য খনিজ রপ্তানীতে উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।
নিরাপত্তা পরিষদে মার্কিন রাষ্ট্রদূত সামান্থা পাওয়ার জানান, কয়লা রূপ্তানী থেকে বছরে উত্তর কোরিয়ার আয় একশ কোটি ডলার, আকরিক লোহা থেকে আয় ২০ কোটি ডলার।
বিশ্লেষকরা মনে করছেন, উত্তর কোরিয়ার আয় কমে গেলে তাদের পক্ষে পরমাণু কর্মসূচি চালিয়ে নেয়া সম্ভব হবে না।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নতুন অবরোধকে স্বাগত জানিয়ে একে যথাযথ পদক্ষেপ বলে বর্ণনা করেছেন।
তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় একই স্বরে কথা বলেছে। তারা উত্তর কোরিয়ার কাছে সাধারণ একটি বার্তা পাঠিয়েছে। তারা বলেছে উত্তর কোরিয়াকে অবশ্যই বিপজ্জনক কর্মসূচি পরিত্যাগ করতে হবে।
দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাই আশা করে বলেছেন, নজিরবিহীন কঠোর এ পদক্ষেপ শেষ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়াকে তার পরমাণু কর্মসূচি থেকে সরিয়ে আনবে।
উল্লেখ্য গত ২০০৬ সালে উত্তর কোরিয়া প্রথম পরমাণু পরীক্ষা চালানোর পর এ নিয়ে পঞ্চমবার জাতিসংঘ দেশটির ওপর অবরোধ আরোপ করলো।

মন্তব্য