মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে মেয়ের সামনে-331616 | বিদেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১০ আশ্বিন ১৪২৩ । ২২ জিলহজ ১৪৩৭


মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে মেয়ের সামনে ধর্ষণ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ মার্চ, ২০১৬ ০২:৩১



মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে মেয়ের সামনে ধর্ষণ!

পাঁচ বছরের মেয়ের সামনেই মাকে ‘ধর্ষণ'৷ মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে মুখে কাপড় গুঁজে এক দুষ্কৃতী পাশবিক অত্যাচার চালাল এক গৃহবধূর উপর৷
অপকর্মের পর দেওয়া হল হুমকি৷ বলা হল, অত্যাচারের কথা চাউর হলে স্বামী ও মেয়েকে মেরে রেললাইনের ধারে ফেলে দেওয়া হবে৷ এমনই অভিযোগ জানালেন অত্যচারিত বধূ৷ মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটে ভারতের ডায়মন্ডহারবার থানার গুরুদাসনগরে৷ বুধবার সকালে প্রতিবেশীরা ওই গৃহবধূকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করেন৷ ভর্তি করেন ডায়মন্ডহারবার হাসপাতালে৷ বধূর ‘মেডিক্যাল টেস্ট' হয়৷ রিপোর্ট এখনও পুলিশের হাতে আসেনি৷ তবে অনুমান, ওই বধূ ‘ধর্ষিত' হয়েছেন৷ অত্যাচারের চিহ্ন অন্তত তাই বলছে৷  
ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার রাতে৷ কয়লা খালাসের কাজে স্বামী বাইরে গিয়েছেন৷ পাঁচ বছরের মেয়েকে নিয়ে ঘরে একাই ছিলেন ওই বধূ৷ রাত বারোটা নাগাদ দরজায় কড়া নাড়ে এক যুবক৷ নিজেকে ‘মুখবেড়িয়ার সূরয' বলে পরিচয় দেয়৷ গৃহবধূ সাফ জানান, এই নামে কাউকে তিনি চেনেন না৷ দরজা তিনি খুলবেন না৷ এরপরই ওই যুবক দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকে৷ ওই বধূর মুখে কাপড় গুঁজে মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকায়৷ তারপর দীর্ঘক্ষণ ধরে চালায় নারকীয় অত্যাচার৷ বধূর পাঁচ বছরের মেয়ের সামনেই৷ স্থানীয় সূত্রে খবর, মহিলার বাড়ির আশপাশে জনবসতি নেই বললেই চলে৷ সেই সুযোগটাই নিয়েছে ওই দুষ্কৃতী৷ সূরয যখন প্রথম দরজায় টোকা দিচ্ছিল, তখনই ওই বধূ আত্মরক্ষার জন্য চেঁচিয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে৷ কিন্তু, দূরে থাকায় প্রতিবেশীদের কানে সেই চিৎকার পৌঁছয়নি৷
ঘটনার তদন্তে নেমেছে ডায়মন্ডহারবার থানা৷ অনুমান, দুষ্কৃতী মহিলার স্বামীর পরিচিত৷ মহিলা যে বাড়িতে একা ছিলেন, সেই খবর তার কাছে ছিল৷ মহিলার বাড়ির আশপাশে কেউ থাকেনা না, সেই খবরও ছিল ওই ‘সূরয'-এর কাছে৷ ঘটনার জেরে গুরুদাসনগরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়৷ বধূর স্বামীকে খবর দিয়ে ডেকে আনা হয়৷ এদিন দুপুরে তদন্তকারীরা বধূর জবানবন্দি নেবে৷ তারপর প্রয়োজন হলে ‘সূরয'-এর ‘স্কেচ' আঁকানো হবে৷ প্রসঙ্গত, গত সোমবার সকালে এই জেলারই জয়নগরে এক কলেজ ছাত্রী টিউশন পড়ে ফেরার পথে হামলার মুখে পড়েন৷ চার দুষ্কৃতী ছাত্রীকে বাইকে চাপিয়ে অপহরণের চেষ্টা করে৷ যদিও ছাত্রীর উপস্থিত বুদ্ধির জোরে সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয়৷ এক দুষ্কৃতীকে ধরেও ফেলেন তিনি৷ বাধা পেয়ে দুষ্কৃতীরা ছাত্রীর গলায় ছুরি চালিয়ে দেয়৷ ওই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই গৃহবধূ ধর্ষণের অভিযোগ নতুন করে চিন্তায় ফেলল প্রশাসনকে৷ - সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন

মন্তব্য