kalerkantho


ছড়া

ঘুঘুর জন্য মুক্ত আকাশ

ফয়েজ রেজা

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ঘুঘুর জন্য মুক্ত আকাশ

অঙ্কন : বিপ্লব

কানাইঘাটের টিলায় ছিল তিলে ঘুঘুর বাসা

ঘুঘুর বাসায় জোনাকিদের ছিল যাওয়া-আসা।

তিলে ঘুঘুর কোলে ছিল কন্যা পরির মতো

তখনো তার পাখা হয়নি বয়সটা আর কত?

খুব বড়জোর এগারো দিন শিখেনি ঠোকরানো

খিদে পেলে হাঁ করে সে বলত খাবার আনো।

ঠোঁটের ডগায় পোকা ধরে মা খাওয়াত তাকে

মেয়েটি তার মাকে যেন ঘু ঘু ঘু ঘু ডাকে।

তখনো তার পালক হয়নি দেবে কী সে ঝাড়া

খিদে পেলে খাবার খেতেই পারে না মা ছাড়া।

সেবার অনেক বন্যা হলো তুমুল জলোচ্ছ্বাসে

ডুবল পাড়া, কপাল ভালো মা ছিল তার পাশে।

সপ্তাখানেক পরেই আবার ভীষণ ঘূর্ণিঝড়ে

ঘুঘুসোনা দেখল তাদের বাসা ঝড়ে নড়ে।

ঘুঘুর ছোট্ট পিঠে তখন পালক ছাড়া ডানা

হঠাত্ করেই ঘুঘুর বাসায় শকুন দিল হানা।

বেলুচিস্তান ও করাচি থেকে শকুন এলো

দেশে তখন যুদ্ধ ভীষণ বাতাস এলোমেলো।

মাথার ওপর হেলিকপ্টার নিচে শত্রুঘাঁটি

গাছের তলায় অশান্ত বুট জুতার হাঁটাহাঁটি।

শহরজুড়ে বিকট শব্দ সারা বনে গুলি

ঘুঘুর কণ্ঠে ভাঙা স্বরে ও মা, মা গো বুলি।

তেল ঢালাতে আগুন তখন ধোঁয়া কালুঘাটে

নীড়ে ঘুঘুর বিমর্ষ দিন, বিমর্ষ রাত কাটে।

ঘুঘুসোনা সবেমাত্র দিচ্ছে হামাগুড়ি

যুদ্ধ তাকে উড়ার জন্য জাগাল সুড়সুড়ি।

মুক্ত জীবন পেতে ঘুঘু উড়ল অবশেষে 

এখন ঘুঘুর মুক্ত আকাশ সারা বাংলাদেশে।



মন্তব্য