kalerkantho

ছড়া

স্বপ্নঘুড়ি

রাজীব কিষাণ

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



স্বপ্নঘুড়ি

অঙ্কন : মাসুম

নীল আকাশে উড়িয়ে দিয়ে ঘুড়ি
দামাল ছেলের দলে
খেলার মাঠে করছে হুড়োহুড়ি।

কার ঘুড়িটা কোথায় যে কোন দূরে
যাচ্ছে নিতুই চলে
আহা কোন সে অচিনপুরে।



যায় দাপিয়ে পাল্লা দিয়ে দিয়ে
ধানের ক্ষেতের মাঠটা রেখে
মেঘের বাড়ি গিয়ে।

ইচ্ছেমতো ঘুরবে উড়ে উড়ে
আকাশ-পথ দেখে দেখে
পাখির ডানায় মনটা দিয়ে জুড়ে।

নতুন দিনের আলোর মশাল জ্বেলে
নিজের মুঠোয় স্বপ্নটাকে নিয়ে
চিনে নেবে ঘুড্ডি-লাটাই খেলে।

তিনটে পুতুল
রেজিনা ইসলাম

ছোট্ট মেয়ে মিনি
আমরা তাকে চিনি
ওর যে তিনটি পুতুল
ইরিন, মিরিন, তুতুল।

দেখতে দারুণ ইরিনটা
চুল ওড়ে তার বাতাসে
হিজিবিজি আঁকিয়ে
ভরে ফেলে খাতা সে।

বোকাসোকা মিরিনটা
জলপাই বলে তালকে!
যদি বলি হাঁটো সোনা
নাহ, নাহ, নাহ কালকে।

লক্ষ্মী ভীষণ তুতুলসোনা
সময়মতো খায়-নায়
বসে বসে ভেঙচি কাটে
মধ্যরাতে আয়নায়।

এই তিনটি পুতুলসোনা
ওর যে ভীষণ আদুরে
সারাটা দিন খেলা করে
আসন পেতে মাদুরে।

ইচিং বিচিং
রকিবুল ইসলাম

ইচিং বিচিং চিচিং ছা—
কাঠবিড়ালি কাঠের ছা
তিড়িং বিড়িং লাফায় নাচে
আম বাগানে আমের গাছে।
লাল টুকটুক পাকা আম
কাঠবিড়ালি একটু থাম।
না থামলে মারব যা!
ইচিং বিচিং চিচিং ছা।


মন্তব্য