kalerkantho


নিজে বানাই

রঙে রঙিন পাখির বাসা

৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



রঙে রঙিন পাখির বাসা

যা যা লাগবে

একটি লম্বা খালি শক্ত চারকোণা কাগজের প্যাকেট, আইকা আঠা, বিভিন্ন রঙের পোস্টার কাগজ, কাঁচি, একটি ব্রাশ, ঝোলানোর জন্য দড়ি আর একটি ছোট কাঠের চামচ

তোমাদের অনেকের হয়তো পোষা পাখি আছে। সেই পাখির থাকার জন্য আছে ছোট্ট একটা হাঁড়ি।

কিন্তু তোমরা নিজেরাই চাইলে তৈরি করে নিতে পারো ছোট্ট একটি পাখির বাসা। আর এর জন্য দরকার হবে একটা লম্বা ও শক্ত কাগজের প্যাকেট। চাইলে নুডলসের বড় কাগজের প্যাকেট দিয়েও বানানো যাবে পাখির বাসা।

 

যেভাবে বানাবে

একটি বাটিতে প্রথমে পানি আর আইকা আঠা মিশিয়ে নাও। বিভিন্ন রঙের পোস্টার কাগজগুলোকে ছোট ছোট চারকোণা করে কেটে নাও। ছুরি বা কাঁচি ব্যবহারে বড়দের সাহায্য নেবে। এবার চারকোণা প্যাকেটের এক পাশে পানি আর আঠার মিশ্রণ দিয়ে ব্রাশ দিয়ে মেখে নাও। এরপর ছোট ছোট চারকোণা করে কাটা রঙিন পোস্টার কাগজগুলো প্যাকেটের গায়ে লাগিয়ে দাও। এভাবে প্যাকেটের চারপাশে রঙিন কাগজে ভরে ফেলো।

ছবিটা খেয়াল করে দেখো। কাগজগুলো কিন্তু খানিকটা এলোমেলো করেই লাগানো হয়েছে। আর তাতেই দেখবে কী সুন্দর রঙিন ঘরের মতো হয়ে গেছে প্যাকেটটা!

এবার এক টুকরা লাল বা কমলা রঙের কাগজ নাও ঘরের চাল বানানোর জন্য। কাগজটাকে মাঝবরাবর ভাঁজ করে নাও। ঠিক মাঝখানে পাশাপাশি দুটো ফুটো করো। ফুটো দুটোর ভেতর দিয়ে দড়ি ঢুকিয়ে গিঁট দিয়ে দাও। আর এই গিঁটটাই বাসাটাকে ঝোলানোর কাজে লাগবে। প্যাকেটের ওপর কুঁড়েঘরের চালের মতো করে আঠা দিয়ে কাগজ বসিয়ে দাও। খেয়াল রাখবে যেন দুই পাশে সমানভাবে বসে। পাখি ঢোকার জন্য দরজা তো চাই? ঘরের যেকোনো এক পাশে চারকোণা করে দরজার মতো কেটে নাও। দরজার ঠিক নিচে একটু জায়গা রাখতে হবে। সেখানে ফুটো করে কাঠের চামচ বা শুকনো গাছের ডাল ঢুকিয়ে দাও, যেন তা অন্য পাশের দেয়ালের সঙ্গে লেগে যায়। এটা হলো পাখির সিঁড়ি! ব্যস, হয়ে গেল পাখির বাসা।

নূসরাত জাহান নিশা


মন্তব্য