kalerkantho


অ্যাপ রিভিউ

ভ্যাট দিয়ে অ্যাপে যাচাই

টেলিকম ডেস্ক   

৭ নভেম্বর, ২০১৫ ০০:০০



ভ্যাট দিয়ে অ্যাপে যাচাই

রেস্টুরেন্টে খাই, বেড়াতে গিয়ে হোটেলে থাকি, কেনাকাটা করি-এমন অনেক ক্ষেত্রেই আসল বিলের সঙ্গে যোগ হয় সরকার নির্ধারিত ভ্যাট। এই টাকা সরকারি কোষাগারে আদৌ জমা পড়ছে কি না তা জানা কঠিন।

সম্প্রতি অ্যানড্রয়েড স্মার্টফোনের জন্য 'ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন চেকার' নামে একটি অ্যাপ চালু হয়েছে। মোবাইলে এটি থাকলে বিষয়টি জেনে নেওয়া কঠিন নয়। দেশি প্রতিষ্ঠান অ্যাপ আর্নেস্টের তৈরি মাত্র ১.৪ মেগাবাইটের অ্যাপটি https://play.google.com/store/apps/ details?id=com.apparnest.binchecker থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

ব্যবহারের জন্য

অ্যাপটি চালু করলে প্রথমে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের পরিচিতি নাম্বার (বিআইএন) চাইবে। বিআইএন দিলে প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ঠিক আছে কি না জানা যাবে। সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের নাম-ঠিকানাও দেখাবে। আর বিআইএন নাম্বার সঠিক না হলে No Result Found দেখাবে। প্রতিষ্ঠানটি নতুন হলে রাজস্ব বোর্ডে নিবন্ধনে কিছুটা সময় লাগে। সে ক্ষেত্রে আপনাকে হাতে লেখা ভ্যাট রসিদ সরবরাহ করবে।

সরকার ভ্যাট পাচ্ছে কি না জানতে আপনাকে দেওয়া বিলে ভ্যাট রেজিস্ট্রেশনের জন্য ১১ ডিজিটের নাম্বার থাকবে। অ্যাপটি চালু করে নাম্বারটি প্রবেশ করালে ভ্যাট জমা হচ্ছে কি না তা জানা যাবে। প্রতিষ্ঠান কোন কর অঞ্চলের আওতায় তা জানা যাবে ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন নাম্বারের প্রথম দুই ডিজিট দেখে। জানা যাবে কোনো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ভ্যাট জালিয়াতির অভিযোগ থাকলেও।

এ জন্য অ্যাপটিতে অভিযোগ করার একটি ফিচার আছে। যেখানে ঢাকা মহানগরকে চারটি অঞ্চলে ঢাকা পূর্ব, পশ্চিম, উত্তর ও দক্ষিণ ভাগ করা হয়েছে। আর অন্যান্য অঞ্চলের মধ্যে আছে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, যশোর, খুলনা, সিলেট ও কুমিল্লা। যেগুলোতে ই-মেইল আইডি দেওয়া আছে এবং ক্রেতারা তাদের অভিযোগ সেসব মেইলে তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারবেন। ভ্যাট সম্পর্কিত সাধারণ কিছু প্রশ্নের উত্তরও রয়েছে অ্যাপটিতে।

অ্যাপটি সরকারের রাজস্ব বোর্ডের ওয়েবসাইট http://www.nbr.gov.bd/ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে, তাই এর ফলাফল যথেষ্ট নির্ভরযোগ্য।

এই ফিচার ব্যবহার করে ই-মেইলের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেইসবুকের মাধ্যমে অভিযোগ জানানো যাবে। বাংলাদেশ কাস্টমসের অফিশিয়াল ফেইসবুক পেজে অভিযোগ করা যাবে।

 


মন্তব্য