kalerkantho


পাওয়ার পয়েন্টের ‘প্লাস পয়েন্ট’

২২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সরাসরি প্রেজেন্টেশন : ল্যাপটপ থেকে পাওয়ার পয়েন্টে ফাইল চালু করে প্রেজেন্টেশনের সময় বারবার স্লাইডশো বাটনে ক্লিক করতে হয়। এতে সময় বেশি লাগার পাশাপাশি মনোযোগ ধরে রাখতেও সমস্যা হয়। চাইলেই পাওয়ার পয়েন্টের নির্দিষ্ট ফাইল ক্লিক করে সরাসরি সব স্লাইডশোতে চালু করা যায়। এ জন্য বাড়তি কোনো কষ্টও করতে হবে না। ফাইল সেইভ করার সময় PPSX এক্সটেনশনে সেইভ করতে হবে।

সাদাকালো প্রেজেন্টেশন : তথ্য উপস্থাপনার সময় মাঝেমধ্যে স্লাইড থেকে বক্তার দিকে অতিথিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে হয়। বক্তব্য দেওয়ার সময় ল্যাপটপে কি-বোর্ডে B বাটন চাপলে স্ক্রিনটি সম্পূর্ণ কালো হয়ে যাবে। ড বাটন চাপলে স্ক্রিনের রং হবে সাদা। মাউসে ক্লিক বা অন্য যেকোনো বাটনে চাপ দিলেই ফের প্রেজেন্টেশন শুরু হবে।

স্ক্রিনশট নেওয়া : অনেক সময় প্রেজেন্টেশনের জন্য কম্পিউটারের স্ক্রিনশটের প্রয়োজন হয়। তবে চিন্তার কিছু নেই, সরাসরি পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমেই স্ক্রিনশট নেওয়া যায়। ‘

insert’ ট্যাব থেকে ‘Screenshot’ আইকেন ক্লিক করে স্ক্রিনের স্ক্রিনশট নেওয়া যাবে।

ক্লাউড বা অনলাইন মিডিয়া থেকে ছবি যুক্ত : প্রেজেন্টেশন তৈরির সময় বিভিন্ন ছবি যুক্ত করার প্রয়োজন হয়। চাইলে আপনার ফ্লিকার, ওয়ানড্রাইভ বা ফেইসবুক থেকে সরাসরি ছবি প্রেজেন্টেশনে যুক্ত করা যাবে পাওয়ার পয়েন্টে। এ জন্য প্রথমে

‘Insert’ ট্যাবে ক্লিক করে  Online Pictures অপশনে প্রবেশ করে ফ্লিকার, ওয়ানড্রাইভ বা ফেইসবুকে লগইন করে ছবি নির্দিষ্ট করতে হবে।

চার্টে এনিমেশন : প্রেজেন্টেশনকে আরো সুন্দর ও তথ্যবহুল করতে গ্রাফিকস চার্ট ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে পাওয়ার পয়েন্টে। চাইলে বিভিন্ন এনিমেশনও যুক্ত করা যাবে। এ জন্য ‘Insert’ ট্যাবে ক্লিক করে ‘Chart’ অপশন নির্বাচন করলেই অনেক নমুনা দেখা যাবে। পছন্দের চার্ট নির্বাচন করে সেখানে এনিমেশন যুক্ত করতে ‘Animations’ ট্যাবে ক্লিক করে ‘Animations Pane’  চালু করে Add Animation-এ ক্লিক করতে হবে। প্রিভিউ : পাওয়ার

পয়েন্টে কাজের সময় মাঝেমধ্যে ফাইলের প্রিভিউ দেখার প্রয়োজন হয়। কিন্তু প্রিভিউ দেখার জন্য বারবার স্লাইডশোতে ক্লিক করতে হয়। বিষয়টি বেশ ঝামেলার। সহজে প্রিভিউ দেখতে চাইলে ‘ view’ থেকে ‘Reading View’ অপশনে ক্লিক করতে হবে। কপি পেস্টের পরিবর্তে ডুপ্লিকেট : পাওয়ার পয়েন্টে কোনো স্লাইডের উপাদান অন্য স্লাইডে নিতে হলে বা স্লাইডগুলোকে কপি করার জন্য Ctlr+C এবং Ctrl-V  কমান্ড দিতে হয়। কিন্তু এর থেকেও সহজ উপায় হচ্ছে ডুপ্লিকেট। নির্দিষ্ট বিষয়ের ওপর Ctrl কি চেপে ক্লিক এবং ড্রাগ করলেই সেটির ডুপ্লিকেট তৈরি করা যায়।

অডিও যুক্ত : প্রেজেন্টেশনে অডিও বা শব্দ যুক্ত করতে প্রথমে ‘Insert’ ট্যাব থেকে ‘Audio’ অপশনে যেতে হবে। এরপর যে অডিও ফাইলটি যুক্ত করতে চান তা নির্বাচন করতে হবে। চাইলে পুরো প্রেজেন্টেশনে একই ব্যাকগ্রাউন্ডের অডিও বাজানো যাবে। এ জন্য অডিও নির্বাচন করে স্পিকার আইকনে ক্লিক করলেই একটি অডিও টুলস দেখা যাবে। এবার ‘ Playback’ ট্যাবে ক্লিক করে Start সেকশন থেকে Play Across Slides নির্বাচন করতে হবে।

বিভিন্ন শেইপ মিশ্রণ : প্রেজেন্টেশনকে আরো ভালোভাবে উপস্থাপন করতে পাওয়ার পয়েন্টে রয়েছে বিভিন্ন আকারের শেইপ। চাইলে দুই বা তার বেশি শেইপগুলোকে একসঙ্গে যুক্ত করে ইউনিক একটি শেইপ বানানো যাবে। এ জন্য ‘Drawing Tools’ থেকে Format ট্যাবে ক্লিক করে Merger Shapes মেন্যু নির্বাচন করতে হবে।

ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড মুছে ফেলা : অনেক সময় ব্যাকগ্রাউন্ড ছাড়া ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন হয়। সব সময় হাতের কাছে সে ধরনের ছবি পাওয়া যায় না। সাধারণত সবাই ছবি থেকে ব্যাকগ্রাউন্ড মুছে ফেলতে ফটোশপের সাহায্যে নেন; কিন্তু অনেকেই ফটোশপের কাজ ঠিকমতো পারেন না। তবে চাইলেই পাওয়ার পয়েন্টে কাজটি করা যায়। এ জন্য ‘home’ ট্যাব থেকে ‘picture’ অপশনে প্রবেশ করে যে ছবিটির ব্যাকগ্রাউন্ড মুছে ফেলতে হবে সেটি পাওয়ার পয়েন্টে যুক্ত করতে হবে। তারপর  Picture Format ট্যাবে প্রবেশ করে Remove Backgroud অপশনে ক্লিক করতে হবে।



মন্তব্য